কুমিল্লা
রবিবার,১৬ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ | ৩ শাওয়াল, ১৪৪২

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সড়কের বেহাল অবস্থা

সামান্য বৃষ্টিতেই কাদা-জলে একাকার হয়ে পড়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে যাতায়াতের একমাত্র রাস্তাটি। এতে ভোগান্তিতে পড়েন দূর-দূরান্ত থেকে সেবা নিতে আসা রোগী ও তাদের স্বজনরা।

এছাড়াও ভাঙাচুরা এ সড়কে চলাচল করতে গিয়ে সীমাহীন ভোগান্তিতে পড়ছেন সাধারণ যাত্রী ও পথচারীরা। দুর্ঘটনার শঙ্কা নিয়েই যাত্রী পারাপারে বাধ্য হচ্ছেন সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ইজিবাইক ও রিকশা চালকরা।

এক পশলা বৃষ্টি ও সামান্য গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে যানচলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়ে কুমিল্লার টমসমব্রিজ থেকে বাখরাবাদ পর্যন্ত সড়কটি।

নগরীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাতায়াতের একমাত্র সড়কটিতে চলতে গিয়ে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও তাদের স্বজনদের।

এছাড়াও সড়কটি দিয়ে যাতায়াত করেন কুমিল্লা ইপিজেড, আদর্শ সদর উপজেলা পরিষদ, বাখরাবাদ গ্যাসফিল্ডসহ আশপাশের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন সরকারি/বেসকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

খানা-খন্দে ভরা সড়কটি দিয়ে যন্ত্রণা আর দুর্ভোগ সয়েই যাতায়াত করতে হয় তাদের।

শুক্রবার বিকেলে সরেজমিনে পরিদর্শন করে দেখা যায়, গুড়ি-গুড়ি বৃষ্টিতে সড়কটির বিভিন্ন স্থানে খানা-খন্দক তৈরি হয়েছে। আর যে সমস্ত জায়গায় সুরকি উঠে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে; সেখানে পানি জমে বইছে ঢেউ। তবে সবচেয়ে ভয়ানক অবস্থা চোখে পড়ে কুচাইতলী এলাকার ‘জনপ্রিয় নার্সারি’র সামনে।

কাদা-জলে মিশে সড়কটির এ অংশ একেবারের চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ঝোল উঠা সড়কটির এ অংশ পারাপার হতে হচ্ছে অত্যন্ত ঝুঁকির সাথে। তারপরও ঘটছে নানা দুর্ঘটনা। আহত হচ্ছেন যাত্রীরা; নষ্ট হয় যানবাহনের মূল্যবান যন্ত্রাংশ।

কুমিল্লা ইপিজেডের ১নং গেইট এলাকায় কথা হয় সিএনজিচালিত অটো চালক মানিক মিয়ার সাথে। তিনি বলেন, বেহাল সড়কটি দিয়ে যাত্রী পারাপারের অস্বস্তিকর অভিজ্ঞতার কথা। ‘এই রাস্তায় প্রতিদিন দুর্ঘটনা ঘটে। রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে বুকে, মাথায়, হার্টে ব্যথা পাই; সর্বোপরি পুরো শরীর ব্যথা হয়ে যায়। রাতে বাসায় গিয়ে শান্তিতে ঘুমাইতে পারি না। তিনি আরো বলেন, ‘এই রাস্তায় এসে রোগীরা আল্লাহ-আল্লাহ ডাকে, প্রশাসনকে গালাগালি করে।’

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রাস্তাটি দীর্ঘ ৬ বছর ধরে কোনো ধরনের মেরামত না হওয়ায় বৃহত্তর কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আসা রোগী ও তাদের স্বজনরা সীমাহীন দুর্ভোগ ও ভোগান্তি সহ্য করছে।

বাখরাবাদ থেকে টমসম ব্রিজ হয়ে কোট বাড়ি বিশ্বরোড পর্যন্ত রাস্তাটির ৭ কিলোমিটার অবস্থা এতোই বেহাল যে সামান্য বৃষ্টিতে খানাখন্দ আর গর্তের কারণে সাধারণ মানুষকে চলাচল করতে অনেক কষ্ট হয়। অনেক আগে থেকেই তৈরি হওয়া ছোট-খাটো গর্তগুলো এখন বড় কুয়ায় পরিণত হয়েছে। অথচ এই সড়কে রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ অনেক সরকারি ও বেসরকারি অফিস।

এ সড়কটি দিয়ে চলাচলকারী যাত্রীরাই শুধু নয়; ভোগান্তি পোহাতে হয় সড়কের আশপাশের বাসিন্দাদেরও। বাসা থেকে বের হলেই তাদের সামনে পড়ে সড়ক নামের দুর্ভোগের চিত্র।’

এ ব্যাপারে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুল হক সাক্কু নতনি কুমিল্লাকে বলেন, নগরীর সব সড়কেই উন্নয়ন কাজ চলছে। ক্রমান্বয়ে এ সড়কটিও সংস্কার হবে।

আরও পড়ুন