কুমিল্লা
বুধবার,১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৮ মাঘ, ১৪২৯ | ৯ রজব, ১৪৪৪
শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি

বৈঠকে হাসিনা-মমতা : জট খুলছে তিস্তার?

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাজ বেঙ্গল হোটেলে বৈঠকে বসেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাতটার দিকে ওই বৈঠক শুরু হয়েছে।

ভারতীয় বার্তাসংস্থা এএনআই এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। ভারতে দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শেষে আজ দেশে ফিরবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সন্ধ্যায় দেশে ফেরার কথা থাকলেও মমতার সঙ্গে বৈঠকে বসার কারণে ফিরতি বিমানের সূচিতে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

সূচিতে পরিবর্তন আনার পর সন্ধ্যায় নেতাজি ভবন থেকে তাজ বেঙ্গল হোটেলে শেখ হাসিনা ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বৈঠকে বসেন।

বৈঠকে বহুল কাঙ্ক্ষিত তিস্তা পানিবণ্টন চুক্তি নিয়ে মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথা হতে পারে বলেন প্রত্যাশা করা হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গের এই মুখ্যমন্ত্রীর ভেটোতে ২০১১ সালে খসড়া চূড়ান্ত হয়েও শেষ পর্যন্ত আলোর মুখ দেখেনি তিস্তা পানিবণ্টন চুক্তি। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি এখনো তার আগের অবস্থানে রয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রী মোদির আনুষ্ঠানিক আলোচনায় মমতা আমন্ত্রিত হলেও তার সঙ্গে কোনো বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়নি।

শুক্রবার শান্তিনিকেতনে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেন শেখ হাসিনা। সেখানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ বাংলাদেশ ভবনের উদ্বোধন করেন তিনি। শনিবার আসানসোলে কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেন শেখ হাসিনা।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে সম্মানসূচক ডক্টরেট অব লিটারেচার (ডি.লিট) প্রদান করে। তিনি তাকে দেয়া এই সম্মাননা সমগ্র বাঙালি জাতিকে উৎসর্গ করেন। আসানসোলে কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় হওয়ার পর এই প্রথম কোনো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে যোগ দিলেন।

আরও পড়ুন