কুমিল্লা
বুধবার,১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৮ মাঘ, ১৪২৯ | ৯ রজব, ১৪৪৪
শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি

চান্দিনায় স্কুল ছাত্র হত্যার অভিযোগে মামলা

চান্দিনা স্কুল ছাত্র শিশু সুমনের রহস্য জনক মৃত্যুতে হত্যার অভিযোগ এনে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন নিহতের মা আকলিমা আক্তার। গত ২৩ মে কুমিল্লা বিজ্ঞ আদালতে দায়ের করা মামলায় নিহতের সৎ মা ও পিতা সহ ৪জনের নাম উল্লেখ করে ৯জনকে আসামী করা হয়।

আকলিমা আক্তার জানান, উপজেলার মহিচাইল ইউনিয়নের জোর পুকুরিয়া গ্রামের পুলিশ সদস্য আবুল কাশেম প্রায় ১৩ বছর আগে আকলিমা আক্তারকে দ্বিতীয় বিবাহ করেন। দাম্পত্য জীবনে তাদের কাজেমুল হাসান সুমন (১১) ও কায়কোবাদ হাসান সায়মুন (৯) নামে দুই সন্তান রয়েছে।

প্রায় দুই বছর পূর্বে আবুল কালাম ও আকলিমা আক্তারের মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ হলে আবুল কাশেম তার দ্বিতীয় সংসারের দুই ছেলেকে নিজের কাছে রেখে দ্বিতীয় স্ত্রীকে তার পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দেন। বড় ছেলে সুমন স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্টেনে পঞ্চম শ্রেণীতে এবং ছোট ছেলে সায়মুন একই স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীতে পড়ালেখা করছিল।

গত ১৭ মে (মঙ্গলবার) সুমন ও সায়মন স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পর খাওয়া-দাওয়া শেষ হলে সুমনকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় ও কপালে এলোপাথারী আঘাত করে হত্যা করে। পরে তরিঘরি করে সুমনের মরদেহ কবর দেয় তারা।

এদিকে নিহত সুমন হত্যার অভিযোগে তার মায়ের দায়ের করা মামলাটি তদন্তের জন্য পিবিআই’কে দেয় বিজ্ঞ আদালত।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কুমিল্লা পিবিআই’র ইন্সপেক্টর ইকতিয়ার উদ্দিন জানান, বিজ্ঞ আদালতের আদেশে মামলাটি তদন্ত করার জন্য আমাদের কাছে এসেছে। আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছে তদন্ত কাছে এখনও শেষ হয়নি। তবে তদন্তের স্বার্থে বিস্তারিত বলা যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন