কুমিল্লা
বৃহস্পতিবার,২২ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৬ কার্তিক, ১৪২৭ | ৩ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২

নগরীতে টেইলার্স দোকানে ঈদের ব্যস্ততা

টেইলার্স দোকানে নতুন করে পোষাক সেলাইয়ের অর্ডার গ্রহণ করছেন না কাটিং মাষ্টাররা। ঈদের আগেরদিন পর্যন্ত পোষাক ডেলিভারী সামনে রেখে কুমিল্লা নগরীর নামিদামি লেডিস ও জেন্টস টেইলার্সের কার্টিং মাষ্টার ও কারিগররা ব্যস্ত সময় পার করছেন।

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে এবারে রোজার শুরু থেকে কুমিল্লা নগরীর টেইলার্স দোকানগুলোতে অর্ডারের চাপ বেশি। তবে জেন্টস টেইলার্স থেকে অর্ডার গ্রহণের অত্যধিক চাপে ছিল লেডিস টেইলার্স। দিন-রাত ধরে কার্টিং মাষ্টার, সহকারি মাষ্টারের হাত থেকে যেমন কাঁচি সরছে না তেমনি মেশিনে যেনো চুম্বকের মতো লেগে রয়েছে কারিগররা।

নগরীর লেডিস ও জেন্টস টেইলার্সগুলোতে প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে সকাল থেকে রাত প্রায় ১২টা অবধি পছন্দের পোষাক তৈরির জন্য অর্ডার দিতে তরুণ-তরুণীদের ভিড় লেগেই রয়েছে। নামিদামি টেইলার্সে গতকঅর থেকে অর্ডার নেয়া বন্ধ রয়েছে।

নগরীর মনোহরপুরের নিউ শারমিন লেডিস টেইলার্সের কার্টিং মাষ্টার আমজাদ জানান, এবারে মেয়েরা হালফ্যাশনের প্লাজু, লং-সেমিলং কামিজের সঙ্গে ডিভাইন টাইপের এবং চুরিদার সালোয়ার সেলাইয়ের দিকে বেশি ঝুঁকেছে।

পোষাক সেলাইয়ের অর্ডার আর গ্রহণ করা হচ্ছেনা। অন্যদিকে ছেলেরা বডিফিটিং শার্ট ও ন্যারো প্লেইন পেন্ট সেলাইয়ের প্রতি এবারেও ঝোঁক রয়েছে। জেন্টস টেইলার্সে গতবারের চেয়ে কাজের অর্ডার অনেকটা বেড়েছে।

নগরীর মনোহরপুরের অনু টেইলার্সের কার্টিং মাষ্টার আবদুল খালেক বাচন নতুন কুমিল্লাকে জানান, গার্মেন্টস বা ব্র্যান্ড আইটেমের প্রতি এবারে তরুণ-যুবকদের চাহিদা থাকা সত্ত্বেও এবারে ভালই অর্ডার মিলছে। অর্ডার নেয়া বন্ধ রয়েছে।

কুমিল্লা নগরীসহ বিভিন্ন এলাকার টেইলার্স দোকান ঘুরে দেখা গেছে কার্টিং মাষ্টার, সহকারি কার্টিং মাষ্টার ও কারিগরদের এক মূহুর্তের জন্য অবসর নেই। বেশিরভাগ টেইলার্সেই এখন ইলেকট্রনিক্স মেশিন আসায় কারিগরদের পরিশ্রম অনেকটা কমেছে। পোষাক সেলাই কাজে নগরীর পাঁচ শতাধিক টেইলার্সে ব্যস্ত সময় পার করছে চার হাজারেও বেশি কারিগর।

(নতুন কুমিল্লা/এইচএম/এসএম/জুন ১২, ২০১৮)

আরও পড়ুন