কুমিল্লা
শনিবার,২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১১ আশ্বিন, ১৪২৭ | ৮ সফর, ১৪৪২

ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে শিক্ষক লাঞ্ছনার অভিযোগ

(বামে) ইউপি চেয়ারম্যান জাফর ইকবাল, (ডানে) শিক্ষক আব্দুল মান্নান। ফাইল ছবি

চৌদ্দগ্রামে আওয়ামী লীগ সমর্থিত এক ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানের নির্দেশে উপজেলার চিওড়া ইউনিয়নের ধোড়করা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নানকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার দুপুরে উপজেলার কনকাপৈত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাফর ইকবালের কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

লাঞ্ছনার শিকার ওই শিক্ষক উপজেলার কনকাপৈত ইউপি আওয়ামী লীগের শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক এবং স্থানীয় লাউলাইশ ক্বিরাতুল কোরআন ইসলামিয়া মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি। ঘটনার তিনদিন অতিবাহিত হলেও স্থানীয়ভাবে মীমাংসার নামে দলীয় লোকজন তাকে আইনগত পদক্ষেপ নিতে দিচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন ওই শিক্ষক।

শিক্ষক আব্দুল মান্নান সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, গত সোমবার দুপুর ১টার দিকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ৯নং কনকাপৈত ইউনিয়নের অফিসে কনকাপৈত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহ আলম পাটোয়ারী আমাকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ডেকে নেন।

ওই অফিসে যাওয়ার পর কনকাপৈত ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জাফর ইকবাল ওই গ্রামের লাউলাইশ ক্বিরাতুল কোরআন ইসলামিয়া মাদরাসার উন্নয়নে রেলপথ মন্ত্রী কর্তৃক অনুদানের ২৫ হাজার টাকার মধ্যে আংশিক টাকা আমি আত্মসাৎ করেছি মর্মে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন।

এ সময় আমি অনুদানের টাকা আত্মসাৎ করিনি বলে জানালে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। একপর্যায়ে তার (চেয়ারম্যান) নির্দেশে সেখানে উপস্থিত চারজন বখাটে আমাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মেরে লাঞ্ছিত করে। পরে সেখানে উপস্থিত লোকজন আমাকে রক্ষা করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন।

তিনি আরও বলেন, রেলপথ মন্ত্রীর অনুদানের যে ২৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছি মর্মে অভিযোগ করা হয়েছে সেই টাকা আমি কৃষি ব্যাংকের স্থানীয় কনকাপৈত শাখায় মাদরাসার ব্যাংক হিসাবে জমা করেছি। যার জমা রশিদও আমার নিকট রয়েছে।

এদিকে শিক্ষককে ইউপি ভবনে ডেকে নিয়ে লাঞ্ছিত করার বিষয়ে জানতে চাইলে বুধবার দুপুরে কনকাপৈত ইউনিয়ননের চেয়ারম্যান জাফর ইকবাল বলেন, ওই শিক্ষককে কেউ মারধর করেনি। তিনি (শিক্ষক) মাদরাসার সভাপতি তাই রেলপথ মন্ত্রীর অনুদানের টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়েছে।

(নতুন কুমিল্লা/এইচএম/জাগোনিউজ২৪/বুধবার, জুন ২০, ২০১৮)

আরও পড়ুন