কুমিল্লা
বুধবার,১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৮ মাঘ, ১৪২৯ | ৯ রজব, ১৪৪৪
শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি: কুমিল্লার চার কলেজে শতভাগ নিশ্চয়ন

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য প্রথম মেধা তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের অধীনস্থ যেসব কলেজে তিনটি বিভাগ চালু আছে, প্রথম মেধা তালিকায় ওইসব কলেজের মাত্র ৯টিতে পূর্ণ আসনে ভর্তির জন্য আবেদন নিশ্চয়ন করা হয়েছে। যার মধ্যে কুমিল্লার ৪টি, ফেনীর ৪টি ও নোয়াখালীর একটি কলেজে রয়েছে। শতভাগ নিশ্চয়ন হওয়া কুমিল্লার ৪টি কলেজের সবগুলোই সরকারি।

কলেজগুলো হলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজে, কুমিল্লা সরকারি কলেজ, কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড সরকারি মডেল কলেজ ও কুমিল্লা গভর্নমেন্ট সিটি কলেজ। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজে বিজ্ঞানে ৪৫০, বাণিজ্য বিভাগে ৪৫০ ও মানবিকে ৩০০ আসন; কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড সরকারি মডেল কলেজে বিজ্ঞানে ১৭০, বাণিজ্যে ৮৫ ও মানবিকে ৮৫; কুমিল্লা সরকারি কলেজে সকল বিভাগে ৩০০ এবং কুমিল্লা গভর্নমেন্ট সিটি কলেজে সকল বিভাগে ১৫০টি আসনের সবকটিতেই যোগ্য প্রার্থী খুঁজে পাওয়া গেছে।

কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা যায়, এ ৪টি সরকারি কলেজের চাহিদা অনুযায়ী তিনটি বিভাগেই পর্যাপ্ত সংখ্যক শিক্ষার্থী আবেদন করে। এছাড়া ফেনীর ৪টি এবং নোয়াখালীর একটি কলেজেও পর্যাপ্ত সংখ্যক শিক্ষার্থী আবেদন করায় শতভাগ নিশ্চয়ন সম্ভব হয়েছে।

সূত্র আরো জানায়, প্রাথমিক মেধা তালিকায় কুমিল্লা জেলার এক বা দুটি বিভাগ চালু আছে এমন কয়েকটি কলেজেও শতভাগ নিশ্চয়ন হয়েছে। তবে জেলার বিপুল সংখ্যক কলেজে প্রাথমিক মেধা তালিকায় শতভাগ নিশ্চয়ন সম্ভব হয়নি। এসব কলেজে প্রতিষ্ঠানের চাহিদা অনুযায়ী যোগ্য শিক্ষার্থী খুঁজে পাওয়া যায়নি এবং সরকারি কলেজসমূহ পছন্দের তালিকায় শীর্ষে থাকায় অনেক শিক্ষার্থী ওইসব কলেজে প্রাথমিক ধাপে আবেদন করেনি।

গ্রামের কলেজসমূহে আশঙ্কাজনক হারে আবেদন কম পড়ায় আসন সংখ্যা অনুসারে কোথাও কোথাও ৩০ শতাংশের বেশি নিশ্চয়ন সম্ভব হয়নি। দ্বিতীয় ও তৃতীয় মেধা তালিকায় ওইসব প্রতিষ্ঠানের কিছুসংখ্যক আসন পূর্ণ হলেও গড়ে ৫০ শতাংশ অপূর্ণ থেকে যেতে পারে।

(নতুন কুমিল্লা/জেপি/এমইইউ/রবিবার, জুন ২৪, ২০১৮)

আরও পড়ুন