কুমিল্লা
শুক্রবার,৪ ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ | ১৮ রবিউস-সানি, ১৪৪২

মাদকে জড়িত দলীয় নেতা-কর্মীদেরও ছাড় দেয়া হবে না : এমপি বাহার

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। ছিব: নতুন কুিমল্লা

কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেছেন, মাদক পাচার, মাদক
সেবনসহ মাদকের যেকোনো ব্যাপারে আওয়ামীলীগের স্থানীয় পর্যায়ের কোনো নেতা-কর্মীর জড়িত থাকার অভিযোগ পাওয়া গেলে তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

মাদকের ব্যাপারে আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা ঢাকায় জিরো টলারেন্সের ঘোষণা দিয়েছেন। আমি কুমিল্লায় ঘোষণা দিয়েছি মাদক, ইভটিজিং ও বাল্যবিয়ে বন্ধ করতে
হবে। আরও একটি বিষয় চাঁদাবাজি- এটি বন্ধেরও ঘোষণা দিয়েছি। কুমিল্লায় এখন চাঁদাবাজি নেই। ইভটিজিং বন্ধে আমার ঘোষণা পর এ প্রবণতা নেই বললেই চলে।

জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সাথে আমার কথা হয়েছে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে মাদকের সাথে জড়িতদের আটক করে জেলে প্রেরণের ব্যবস্থা করতে।
আমাদের দেশে মাদকের ব্যাপারে প্রচলিত আইন দুর্বল।আটকের পর এক- দেড়মাস পর অপরাধীরা ছাড়া পেয়ে নতুন করে অপরাধ করা শুরু করে। মাদক নিয়ন্ত্রণে আরো কঠোর
আইন প্রণয়ন করতে হবে। মাদকের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবসের সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। জেলা প্রশাসন ও
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের আয়োজনে ও সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সহযোগিতায় এ সভা গতকাল বীরচন্দ্র নগর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।

সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেন, আমাদের কাছে অভিযোগ রয়েছে পুলিশ বিভাগেকিছু সংখ্যক দুর্নীতিগ্রস্ত পুলিশ আছে যারা ১০-১২ টি ইয়াবা টেবলেট কোনো এক
যুবকের পকেটে ঢুকিয়ে দিয়ে টাকা চায়। বলে, ১০-১২ হাজার টাকা দে নয়তো জেলে ঢুকিয়ে দেব। এসব পুলিশদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা
বাহিনীকে স্বচ্ছতার সাথে কাজ করতে হবে। দেশের উন্নয়নে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। মনে রাখতে হবে এ দেশ শেখ হাসিনার কাছেই নিরাপদ। আমরা মাদককে ‘না’ বলবো। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করবো।

সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো: আবুল ফজল মীর। তিনি বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে শুধু ‘না’ বলা নয়, মাদককে প্রতিরোধ করতে হবে। এজন্য জনপ্রতিনিধি, জেলা ও পুলিশ প্রশাসনসহ সকলকে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করতে হবে।

অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হোসেন ছিদ্দিক, জেলা শিক্ষা অফিসার মো: আব্দুল মজিদ, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাত ও সিভিল সার্জনের পক্ষে ডা: সোমেন রায়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কুমিল্লা কার্যালয়ের উপ পরিচালক মো: মানজুরুল ইসলাম।

বক্তব্যরাখেন জন্ম মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক শোয়েব আহমেদ জুয়েল ও আদর মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক রেজাউল করিম
সেলিম। মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন কুমিল্লা টাউন হলের সাধারণ সম্পাদক আবিদুর রহমান জাহাঙ্গীর। সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন অবসরপ্রাপ্ত জেলা কালচারাল অফিসার বশীর উল আনোয়ার। বর্ণাঢ্য র‌্যালির মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গনে র‌্যালির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো: আবুল ফজল মীর। র‌্যালিটি টাউন হল মাঠে এসে শেষ হয়। এরপর বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম মুক্ত মঞ্চে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ সনাক্তকরণ কর্মসূচি পালন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার, জেলা প্রশাসক মো: আবুল ফজল মীর, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হোসেন ছিদ্দিক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাইজার মোহাম্মদ ফারাবীসহ জেলা প্রশাসনের নির্বাহী
ম্যাজিস্ট্রেটগণ। আলোচনা অনুষ্ঠানের পর রচনা ও চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতায়বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধান অতিথি সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারসহ অন্যান্য অতিথিগণ।

(নতুন কুমিল্লা/এইচএম/এমএ/বুধবার, জুন ২৭, ২০১৮)

আরো পড়ুন…  

সারা দেশে মাদক সংকট: কুমিল্লায় রমরমা ব্যবসা !

আরও পড়ুন