কুমিল্লা
শুক্রবার,১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৩ আশ্বিন, ১৪২৭ | ২৯ মুহাররম, ১৪৪২

পর্তুগালে ৪৯তম আন্তর্জাতিক ফিজিক্স অলিম্পিয়াড শুরু

বিশ্বের ৮৭টি দেশের ৪৪৭জন শিক্ষার্থী নিয়ে ৪৯তম আন্তর্জাতিক ফিজিক্স অলিম্পিয়াডেক (IPhO) বিশ্ব লড়াই পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে শুরু হয়েছে। স্থানীয় সময় রবিবার (২২ জুলাই) সকালে লিসবন বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন পর্তুগালের শিক্ষা সচিব জোয়ান কোস্টা। বক্তব্য রাখেন, আন্তরজাতিক ফিজিক্স অলিম্পিয়াড কমিটির সভাপতি ড. হানস জর্ডান । অনুষ্ঠানে অতিথিরা ৪৯তম ফিজিক্স অলিম্পিয়াডের স্মারক ডাকটিকেট উন্মোচন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ৮৭টি দেশের শিক্ষার্থীদের বড় পর্দায় পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। এসময় বাংলাদেশ দলের পাঁচ প্রতিযোগী নটর ডেম কলেজের ইরতিজা ইরাম ও তাহমিদ মোসাদ্দেক, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের রাশেদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম কলেজের আবরার আল শাদীদ আবীর ও বরিশাল জিলা স্কুলের ইমতিয়াজ তানভীর রাহিম হাত নেড়ে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা নিয়ে সবাইকে শুভেচ্ছা জানান।

বাংলাদেশের এই দলের সঙ্গে লিডার হিসাবে আছেন দলের কোচ অধ্যাপক এম আরশাদ মোমেন এবং বাংলাদেশ ফিজিকস অলিম্পিয়াড কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর মাসুদ।

২০১১ সাল থেকে বাংলাদেশ ফিজিকস অলিম্পিয়াড কমিটি বাংলাদেশে ফিজিক্স অলিম্পিয়াডের আয়োজন করে আসছে। গত বছর থেকে এই আয়োজনের সঙ্গে পৃষ্ঠপোষক হিসেবে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক ও ব্যবস্থাপনায় প্রথম আলো যুক্ত হয়েছে। গত বছর বাংলাদেশ দল আন্তর্জাতিক ফিজিকস অলিম্পিয়াডে প্রথম একটি রৌপ্য পদক পায়। এ ছাড়া গতবারের ওই আসরে বাংলাদেশ তিনটি ব্রোঞ্জ পদক ও একটি সম্মানজনক পদকও পায়।

৪৯তম আন্তর্জাতিক ফিজিকস অলিম্পিয়াডে অংশ নেওয়ার জন্য ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায় ও প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশের ১৪টি শহরে আঞ্চলিক উৎসব হয়। এসব উৎসবে প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থী অংশ নেয়। আঞ্চলিক পর্যায়ের প্রায় ১ হাজার বিজয়ীকে নিয়ে এরপর জাতীয় উৎসব করা হয়। জাতীয় উৎসবে সেরা ৭০ জন শিক্ষার্থীর মধ্য থেকে চূড়ান্ত দল নির্বাচন করে বাংলাদেশ ফিজিকস অলিম্পিয়াড কমিটি।

(নতুন কুমিল্লা/জেপি/এমআরএ/২২ জুলাই ২০১৮)

আরও পড়ুন