কুমিল্লা
শুক্রবার,৪ ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ | ১৮ রবিউস-সানি, ১৪৪২

দাউদকান্দিতে পুলিশের ধাওয়ায় বিলে ঝাপ দিয়ে ব্যবসায়ীর মৃত্যু

ব্যবসায়ী স্বপন মিয়াজীর ফাইল ছবি।

দাউদকান্দিতে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে বিলে ঝাপ দেয়ার চার দিন পর নিখোঁজের ব্যবসায়ী স্বপন মিয়াজী (৪২) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।গত শুক্রবার রাতে সুন্দুলপর মডেল ইউনিয়নের সুন্দুলপুর বাজারে পশ্চিম পাশ্বের মতিন মিয়ার বাড়ির সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

সোমবার (৩০ জুলাই) দুপুরে স্থানীয়রা বিলের মধ্যে স্বপন মিয়াজী লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে নিহত স্বপনের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। নিহত ব্যবসায়ী স্বপন মিয়াজী সুন্দুলপুর গ্রামের মিয়াজী বাড়ির মৃত ছিদ্দিকুর রহমান মিয়াজী।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সুন্দুলপুর গ্রামের স্বপন মিয়াজী ২/৩ মাস আগে মালোশিয়া থেকে দেশে এসে সুন্দুলপুর বাজারে মুদি দোকান করে বৃদ্ধ মা, ২ সন্তান আর স্ত্রী রহিমা আক্তারকে নিয়ে সুন্দর ভাবে সুখের সংসার পরিচালনা করেন। গত শুক্রবার রাত ৮ার দিকে সাদা পোষাকে ৪জন পুলিশ ব্যবসায়ী স্বপন মিয়ার বাড়িতে যায়। তাকে বাড়িতে না পেয়ে তারা জানতে পারেন ব্যবসায়ী স্বপন পাশের মতিন মিয়ার বাড়িতে অবস্থান করছেন।

এক পর্যায়ে স্বপন মিয়া পুলিশ দেখে দৌড় দিয়ে পালানোর চেষ্ঠা করে। পুলিশও তার পিছনে ছুটে তাকে ধাওয়া করলে এক পর্যায়ে তিনি বিলের পানিতে ঝাঁপ দেয়। এসময় পুলিশ তাকে পানি থেকে তুলতে এক এক পুলিশ সদস্য পানিতে নেমে খুজাখুজি করে। পরবর্তীতে তাকে না পেয়ে তারা চলে যায়ন।

এরপর থেকে স্বপন তার পরিবারের সদস্যদের নিকট ফিরে না আসায় রবিবার (২৯ জুলাই) দাউদকান্দি মডেল থানায় তার স্ত্রী রহিমা বেগম একটি জিডি করেন।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেনের পরামর্শক্রমে গ্রাম পুলিশ ও স্থানীয়রা বিলের মধ্যে খুঁজাখুজি করে কচুরিফেনা ভরা এক ডুবা থেকে পচা ও অর্ধগলিত লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাল মর্গে প্রেরণ করেন।

সুন্দুলপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও আয়ামীলীগ নেতা আসলাম মিয়াজী নতুন কুমিল্লাকে বলেন, ব্যবসায়ী স্বপন মিয়াজী দীর্ঘদিন মালেয়শিয়া প্রবাস জীবন শেষে দেশে এসে একটি মুদি দোকান দিয়ে কোন রকম সংসার চালাতেন।তার বিরুদ্ধে কোন মামলা মুকদ্দমা ছিলানা। সে নিরীহ প্রকৃতির লোক ছিল।

দাউদকান্দি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আমগীর হোসেন এনতুন কুমিল্লাকে, আমার থানায় সাদা পোষাকের কোন পুলিশের টিম অভিযান করেননি।তবে তার বিরুদ্ধে একটি মাদকের মামলা রয়েছে বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ডিবি) ওসি মোঃ নাছির উদ্দিন মৃধা এর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

(নতুন কুমিল্লা/একে/এসএইচ/৩০ জুলাই ২০১৮)

আরও পড়ুন