কুমিল্লা
মঙ্গলবার,২০ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৪ কার্তিক, ১৪২৭ | ২ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২

কুমিল্লায় ২শ’ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সিং মাধ্যমে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়ণ ও দাউদকান্দি ২শ’ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন করেছেন। বিদ্যুৎ বিভাগ, বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে রবিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিং জেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

ভিডিও কনফারেন্সিং-এ আলোচনাকালে প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো: আবুল ফজল মীর। তিনি কুমিল্লা পর্বের সঞ্চালকের দায়িত্বও পালন করেন। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল (লোটাস কামাল)। ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে লালমাই উপজেলার কেদার দুয়ার গ্রামের খামারী তাহেরা বেগম বলেন, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাধ্যমে তিনি স্বাবলম্বী হয়েছেন। তার একটি গরুর খামার আছে।

তিনি একটি ওয়াটার পাম্প খরিদ করে তার জমির পাশে স্থাপন করেছেন। এতে তিনি যেমন উপকৃত হয়েছেন তেমনি এলাকার কৃষকেরাও উপকৃত হয়েছে। তিনি সদর দক্ষিণ উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়ণ করায় প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খামারী তাহেরা বেগমের বক্তব্যের প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, এ প্রকল্পের কথা আমিই প্রথম চিন্তা করেছি। এ প্রকল্প চালু হওয়ার পর গ্রামের সাধারণ মানুষ উপকৃত হচ্ছে।প্রধানমন্ত্রী গতকাল কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলাসহ ২১টি উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়ণ, দাউদকান্দি ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ ৬টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের আগে জ্বালানী উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহি চৌধুরী, বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নছরুল হামিদ ও বিদ্যুৎ সচিব ড. আহাম্মদ বক্তব্য রাখেন। জ্বালানী উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহি বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর মাত্র ৩০০ মেগাওয়াট উৎপাদন হতো। ৩০০ মেগাওয়াট থেকে এখন ২০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে।বিদ্যুৎ সচিব ড. আহাম্মদ জানান, আগামী জুনের মধ্যে ৪শ ৬০টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা হবে। তিনি বলেন, বিগত ১০ বছরে বাংলাদেশে ৩ গুণ বিদ্যুৎ উৎপাদন বেড়েছে।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের কক্ষে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মো: শাহ আবিদ হোসেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো: আসাদুজ্জামান, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আমীর আলী চৌধুরী, আদর্শ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আমিনুল ইসলাম টুটুল, পিপি মোস্তাফিজুর রহমান লিটন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক দিলীপ কুমার অধিকারী, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক জেড এম মিজানুর রহমান,

গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৗশলী এ এইচ এম ফাইজুল ইসলাম, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল কুদ্দুস আখন্দ, সিনিয়র তথ্য অফিসার মীর হোসেন আহসানুল কবীর, কুমিল্লা সরকারি মহিলা বিদ্যালয়ের প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রফেসর জোহরা আনিস, সদর দক্ষিণ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল হাই বাবলু, সদর দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রূপালী ম-ল, বিদ্যুৎ বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ সরকারি বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা ও সাংবাদিকবৃন্দ।

(নতুন কুমিল্লা/জেপি/এএম/০৬ আগস্ট ২০১৮)

আরও পড়ুন