কুমিল্লা
শুক্রবার,১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৩ আশ্বিন, ১৪২৭ | ২৯ মুহাররম, ১৪৪২

কুবির গেইট থেকে খালেদা জিয়ার নাম মুছে দিল ছাত্রলীগ!

খালেদা জিয়ার নাম মুছে ফেলা গেইট। পাশে নাম যুক্ত গেইটের একাংশ/ ছবি: নতুন কুমিল্লা

বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপি সরকারের মন্ত্রীদের নামসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের নামফলকের একাংশ মুছে দিয়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) বেলতলী বিশ্বরোড সংলগ্ন গেইটের ভিত্তিপ্রস্তরে থাকা গেইটে লাগানো পোস্টার তুলে পরিষ্কার এবং ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে জেব্রা ক্রসিং নির্মাণ করে শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। তবে এ সময় গেইটে দেয়া ভিত্তিপ্রস্তরের নামফলকের একাংশ রং লাগিয়ে মুছে ফেলা হয়।

এদিকে নামফলকে থাকা বেগম খালেদা জিয়ার নাম মুছে ফেলায় ক্ষোভ প্রকাশ এবং প্রতিবাদ জানিয়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সভাপতি মোঃ নূরুল আলম চৌধুরী নোমান এবং সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দীন স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলেন, ২০০৬ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেছেন। কিন্তু অত্যান্ত দু:খের বিষয় ছাত্রলীগ প্রশাসনের সহায়তায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামফলক মুছে ফেলে চরম হীনমন্যতার পরিচয় দিয়েছেন তারা। এছাড়াও বিবৃতিতে অতি দ্রুত খালেদা জিয়ার নাম প্রতিস্থাপন না করলে ছাত্র ধর্মঘট সহ কঠোর কর্মসূচি দিতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল বাধ্য থাকবে বলে হুশিয়ার করে দেন।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত বিবৃতির কপি/ নতুন কুমিল্লা

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শুভ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, “হাজার হাজার শিক্ষার্থী কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচয় দেই। কিন্তু ছাত্রলীগ আমাদের পরিচয়ের জায়গায়ও হাত দিলো! যিনি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নামফলক থেকে তার নাম মুছে ফেলা হয়েছে। এমন ঘৃণীত কাজের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।”

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ নতুন কুমিল্লাকে বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ের গেইটটি অনেক দিন ধরে অরক্ষিত অবস্থায় ছিলো। সেখানে ছাত্রদলের পোস্টার লাগানো ছিলো। যখন আমরা সেগুলো পরিষ্কার করি পোস্টারের কাগজগুলো নামফলকের গর্তে ঢুকে যাওয়ায় অসুন্দর দেখাচ্ছিলো। তাই একপাশে রং করে দিয়েছি। অপর পাশের নামফলকে আমরা কিছুই দেই নি।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোঃ কামাল উদ্দীন নতুন কুমিল্লাকে বলেন, “আমরা এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পাইনি। ঘটনা তদন্ত করে যদি এমন ঘটনা ঘটে থাকে তবে আমরা ব্যাবস্থা গ্রহণ করবো।”

আরও পড়ুন