কুমিল্লা
রবিবার,১ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১৬ কার্তিক, ১৪২৭ | ১৩ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২

কুমিল্লায় ব্রীজ সংযোগ সড়ক না থাকায় ৫ বছর ধরে দুর্ভোগ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন পূর্বধৈইর পশ্চিম ইউনিয়নের খৈইয়াখালি মুন্সী বাড়ীর দৌলতপুর-মাদবপুর সড়কের পাশের খালের উপর প্রায় ৫ বছর পূর্বে নির্মিত ব্রীজের দুই পাশে কোন সংযোগ সড়ক নির্মাণ না করায় সেতুটি স্থানীয়দের কোন কাজে আসছেনা। ২০১৪ সালে এলজিএসপির অর্থ্যায়নে এই ব্রীজটি নির্মান করা হলেও শুধু সংযোগ সড়ক নির্মাণ না হওয়ায় এই পথে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে শতাধীক পরিবারের লোকজন।

স্থানীয়রা জানায়, খালে উপর ওই স্থানে বাশেঁ সাঁকু নির্মাান করে প্রতিদিন মুন্সী বাড়ীরর শতাধীক পরিবারের লোকজন যাতায়াত করে থাকেন। পরিবারগুলোর সমস্যার কথা চিন্তা করে স্থানীয় প্রশাসন এলজিএসপির অর্থায়নে ওই স্থনে ২০১৪ সালে একটি ব্রীজ নির্মান করে। কিন্তু সেতুর সংযোগ সড়ক না থাকার কারণে মানুষ কাক্সিক্ষত সুফল পাচ্ছে না। লোকজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই ব্রীজের উপর দিয়ে চলাচল করে আসছেন। ব্রীজ নির্মানে প্রায় ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও সংযোগ সড়ক নির্মাণ না হওয়ায় ব্যাবহার করা যাচ্ছেনা সেতুটি।

এভাবে অবহেলিত থাকলেও সেদিকে নজর দেয়নি কেউই। বর্তমানে বাঁশ ও কাঠ দিয়ে তৈরি করা সাঁকো দিয়ে লোকজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে আসছেন। এতে করে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে শিশু-নারীসহ এই পথে যাতায়ায়ত করা শতাধীক পরিবার।

মুন্সী বাড়ীর কৃষক আব্দুল খালেক নতুন কুমিল্লাকে জানান, বর্ষা কালে আমাদের ভোগান্তি বেরে যায়। এলাকাবাসী সংযোগ সড়কের জন্য স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ করেও ব্যর্থ হয়েছে। সব সময় আশ্বাস দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি।

এ বিষয়ে পূর্বধৈইর পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম নতুন কিবলেন, ব্রীজটি নির্মানে যে অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল সে অর্থ দিয়ে সংযোগ সড়ক নির্মান করা সম্ভব হয়নি। বরাদ্দ পেলে সড়ক নির্মান করা হবে।

মুরাদনগর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মিতু মরিয়ম বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। খুব শিগগিরই সংযোগ সড়ক তৈরি করে ব্রীজটি যথাযথ ব্যবহারের উপযোগী করার ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন