কুমিল্লা
বৃহস্পতিবার,২২ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৬ কার্তিক, ১৪২৭ | ৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২

চৌদ্দগ্রামে বাস পোড়ানো মামলায় মনিরুল হক চৌধুরী কারাগারে

মনিরুল হক চৌধুরী / ফাইল ছবি

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে নৈশকোচে পেট্রোল বোমা মেরে আট যাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সদস্য মনিরুল হক চৌধুরীর জামিন বৃদ্ধির আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছে জেলা জজ আদালত।

বুধবার দুপুরে কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক কে এম শামছুল আলম এই আদেশ দেন। এই মামলায় হাইকোর্ট থেকে নেয়া মনিরুল হক চৌধুরীর অন্তবর্তীকালীন জামিনের মেয়াদ ৫ দফা বাড়ানোর পর বুধবার কুমিল্লার আদালতে আবার জামিন বৃদ্ধির আবেদনের শুনানী করা হয়। পরে আদালত ঐ আদেশ দেন। এ মামলায় মনিরুল হক চৌধুরীর নাম না থাকলেও তদন্তের পর চার্জসীটে তার নাম আসে।

মনিরুল হক চৌধুরীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট নাজমুস সাদাত জানান, গত ১১ ফেব্রুয়ারি মনিরুল হক চৌধুরী হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন করলে তাকে ৭ মার্চের মধ্যে কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হতে বলা হয়। তিনি ৬ মার্চ হাজির হলে আদালত তাকে অন্তবর্তীকালীন জামিন প্রদান করে। ৩০ মে তিনি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হন। ৩১ মে হুইল চেয়ারে করে তাকে আদালতে আনার পর চিকিৎসার জন্য স্থায়ী জামিন চাওয়া হয়। আদালত স্থায়ী জামিন না দিয়ে জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধি করেন। বুধবার আমরা তার স্থায়ী জামিনের আবেদন করি। আদালত শুনানী শেষে তাকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

তিনি জানান, এ মামলায় এজহারে মনিরুল হক চৌধুরীর নাম ছিল না। চার্জসীটে তাকে সর্বশেষ ৭৭ নম্বর আসামী করা হয়।এই মামলায় আগামী ১১ নভেম্বর বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানী অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

উল্ল্খ্যে, সরকার বিরোধী আন্দোলনের সময় ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুর এলাকায় একটি নৈশকোচে পেট্রোল বোমা হামলায় আট যাত্রী নিহত হয়। এ ঘটনায় হুকুমের আসামি করে হত্যা মামলার পাশাপাশি বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে আরও একটি মামলা করে পুলিশ।

আরও পড়ুন