কুমিল্লা
শনিবার,২৩ জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৯ মাঘ, ১৪২৭ | ৯ জমাদিউস-সানি, ১৪৪২

আমদিঘীর লিজ বাতিল করে মাটি ভরাট বন্ধে হাইকোর্টের রুল

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) হাউজিং অ্যাস্টেট এলাকার আমদীঘির লিজ বাতিল করে ভরাট বন্ধে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ এ আদেশ দেয়। একইসঙ্গে স্পেশাল সার্ভে কমিটি করে ৯০ দিনের মধ্যে লিজ বাতিল ও ভরাট বন্ধে নেয়া পদক্ষেপ বিষয়ে আদালতকে জানাতে বলা হয়েছে।

এছাড়াও আামদিঘীতে মাটি ভরাট বন্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে কুমিল্লার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও স্থানীয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আদালতে রিটকারী পক্ষে শুনানি করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী একলাছ উদ্দিন ভূইয়া। সঙ্গে ছিলেন সৈয়দা শাহীন আরা লাইলি ও দিদারুল আলম দিদার।

এডভোকেট একলাছ উদ্দিন বলেন, কুমিল্লার হাউজিং অ্যাস্টেটের ৯২ সালের মুল নকশায় আমদিঘীসহ একাধিক দিঘী রয়েছে। তবে আমদিঘীকে খাস জমি দেখিয়ে গত বছর ছয় ব্যাক্তিকে লিজ দেয়া হয়। বিষয়টি নিয়ে গণ মাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশের পর চলতি বছরের ১৮ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনায় ওই লিজ বাতিল করে মাটি ভরাট বন্ধে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। তারপরও সংশ্লিষ্টরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় আইনি পদক্ষেপ নেয়া হয়।

এর আগে ঐতিহ্যবাহী ওই দীঘিটিকে প্লট দেখিয়ে তা ভরাট করা হচ্ছে-মর্মে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে সংবাদ প্রকাশিত হলে বিবাদীর প্রতি নোটিশ পাঠানো হয়। নোটিশের জবাব না পাওয়ায় হাইকোর্টে রিট করা হয়। ওই দিঘী এলাকার বাসিন্দা নাজমুল আলম রিটটি দায়ের করেন।

রিটে বিবাদী (রেসপনডেন্ট) করা হয় গৃহায়ন ও গণপূর্ত সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, পরিবেশ ও বন সচিব, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ, পরিবেশ অধিদফতর, কুমিলার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ ১০ জনকে।

আরও পড়ুন