কুমিল্লা
শুক্রবার,২৭ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ | ১১ রবিউস-সানি, ১৪৪২

সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল চ্যাম্পিয়ন দলে কুমিল্লার শাকিল

সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ দলে কুমিল্লার শাকিলক্রীড়া প্রতিবেদক: ছেলেদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবলের শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ। শনিবার ফাইনালে পাকিস্তানকে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে হারিয়েছে লাল-সবুজের দল। নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে ড্র ছিল। বাংলাদেশ দলের হয়ে এদিন মাঠ মাতিয়েছেন কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার শিবরামপুর গ্রামের কিশোর শাকিল। সেমি ফাইনালে স্বাগতিক নেপালের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত এক গোল করে শাকিলই ফাইনালে তুলেছিলো বাংলাদেশ দলকে। তবে ফাইনালে গোল না পেলেও বল নিয়ে কাঁরিকুরিতে দারুণ নৈপূণ্য দেখায় সে।

নেপালের আনফা কমপ্লেক্সে ফাইনালের শুরু থেকে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু দুই ফরোয়ার্ড রাসেল আহমেদ আর নিহাত জামান উচ্ছ্বাসের চারটি প্রচেষ্টা নষ্ট হওয়ায় গোলের অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে ২৫ মিনিট। গোলটা অবশ্য আত্মঘাতী। কর্নার থেকে হেড করে দলকে বিপদমুক্ত করতে গিয়ে উল্টো নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানের ডিফেন্ডার হাসিব আহমেদ।

প্রথমার্ধে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশ ধাক্কা খেয়েছে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে। বিরতির পরই পাকিস্তান সমতা নিয়ে আসে ম্যাচে। ৫৩ মিনিটে ডিফেন্ডার হেলাল আহমেদের ফাউলের সুবাদে পেনাল্টি পায় পাকিস্তান। মহিবউল্লাহর ডান দিক দিয়ে নেওয়া শট ঠেকাতে পারেননি গোলকিপার মিতুল মারমা।

৭৪ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ এসেছিল বাংলাদেশের সামনে। তবে ইবনে আহাদ শাকিলের কর্নার থেকে উচ্ছ্বাসের জোরালো হেড রুখে দেন পাকিস্তানের গোলকিপার।

নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষে সরাসরি টাইব্রেকারে গড়ায় খেলা। টাইব্রেকারে বদলি গোলকিপার মেহেদী হাসানের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স বাংলাদেশকে এনে দিয়েছে শিরোপার উল্লাস। বাংলাদেশের হয়ে তৌহিদুল ইসলাম হৃদয়, রাজা আনসারী ও রুস্তম ইসলাম গোল করলেও রাজন হাওলাদারের শট চলে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে। আর রবিউল ইসলামের শট ঠেকিয়ে দেন প্রতিপক্ষ গোলকিপার। অন্যদিকে পাকিস্তানের তিনটি শট রুখে দিয়ে লাল-সবুজদের জয়ের নায়ক মেহেদী।

গত আগস্টে মেয়েদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবলে ফেভারিট হয়েও শিরোপা জিততে পারেনি বাংলাদেশ, ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে যায় ১-০ গোলে। মেয়েদের আক্ষেপ ঘুচিয়ে ছেলেরা ট্রফি উপহার দিয়েছে দেশকে, নেপালে শিরোপা-উৎসবে মেতে গড়েছে ইতিহাস। এখন শুধুই এগিয়ে যাওয়ার পালা।

আরও পড়ুন