কুমিল্লা
সোমবার,২৬ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১০ কার্তিক, ১৪২৭ | ৭ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২

কুমিল্লা-৯: মহাজোটের এটিএম আলমগীরের মনোনয়ন সংগ্রহ

কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের মনোনয়নপ্রত্যাশীর দৌঁড়ে এগিয়ে থাকা জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য এটিএম আলমগীর দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। বরিবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানী ঢাকার বনানীতে অবস্থিত জাতীয় পার্টির দলীয় কার্যালয় থেকে পার্টির যুগ্ম-মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজুর হাত থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন তিনি।

এ সময় জাতীয় পার্টির লাকসাম-মনোহরগঞ্জসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এটিএম আলমগীর জাতীয় আইনজীবী ফেডারেশনের ভাইস চেয়ারম্যান পদেও রয়েছেন।

এদিকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহের পর রবিবার সন্ধ্যায় তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় মহাজোটের মনোনয়নপ্রত্যাশী সাবেক সংসদ সদস্য এটিএম আলমগীর জানিয়েছেন, কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসন থেকে মহাজোটের মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী তিনি। এটিএম আলমগীর বলেন, শুধু জাতীয় পার্টি নয়, আওয়ামী লীগের তৃণমূলের ত্যাগী নেতাকর্মীরাও পরিবর্তন এখন চায়। মহাজোট থেকে আমাকে মনোনয়ন দিলে তারা সকলেই আমার পক্ষে নিরলসভাবে মাঠে নামবে, আমাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করতে কাজ করবে।

এছাড়া লাকসাম-মনোহরগঞ্জের প্রতিটি গ্রামেই আমার কর্মী-সমর্থক রয়েছে। তাদেরও দাবি মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে যেন আমাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। সবকিছু মিলিয়ে বলতে গেলে আমি শতভাগ আশাবাদী কুমিল্লা-৯ আসনে জাতীয় পার্টিকে শক্তিশালী করতে এবং সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজ করাসহ এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে সাবেক রাষ্ট্রপতি পার্টির চেয়ারম্যান পল­ীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদসহ মহাজোটের নীতিনির্ধারকরা আমার উপরই আস্থা রাখবেন। ইনশাআল্লাহ আমিই মহাজোটের মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করবো।

জানা গেছে, চলতি বছরের ২৩ এপ্রিল জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে জাপায় যোগদান করেন কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য এটিএম আলমগীর। এরপর থেকে কুমিল্লা-৯ আসনে পাল্টে গেছে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের হিসাব। সাবেক এমপি এটিএম আলমগীর জাতীয় পার্টিতে যোগদান করার পর থেকেই লাকসাম-মনোহরগঞ্জে নানা গুঞ্জন শুরু হয়। বাজারে আসতে থাকে নানান কথা। এই আসনে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারদের মতে, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে থাকা মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এটিএম আলমগীরকে এই আসনে প্রার্থী করবেন বলে কথা দিয়েছেন।

এছাড়া জোটের অস্তিত্ব রক্ষা করতে আওয়ামী লীগ কখন কী সিদ্ধান্ত নেন তা জানা নেই কারোই। সেই হিসেবে বলা যায় এটিএম আলমগীরে পাল্টে গেছে কুমিল্লা-৯ আসনের নির্বাচনী হিসাব।

প্রসঙ্গত, ১৯৯১ সালে পঞ্চম ও ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাবেক কুমিল্লা-১০ বর্তমানে কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এটিএম আলমগীর। এরপর ১৯৯৬ সালের সপ্তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সর্বদলীয় নির্বাচন হলে বর্তমান সংসদ সদস্য মো.তাজুল ইসলামের কাছে ২৭’শ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন তিনি। এরপর ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপি থেকে আর মনোনয়ন পাননি তিনি। তবে ওই সময়ে বিএনপি ক্ষমতায় এলে বাংলাদেশ শিল্প ও কমার্স ব্যাংকের চেয়ারম্যান করা হয় তাঁকে। সর্বশেষ চলতি বছরের ২৩ এপ্রিল জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে জাপায় যোগদান করার পর থেকেই এলাকায় নির্বাচনী কাজ শুরু করেছেন তিনি।

প্রতিনিয়ন জাতীয় পার্টি ও মহাজোটের নেতৃত্বে থাকা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন তিনি। দুই উপজেলায় নিয়মিত ব্যাপক গণসংযোগ ও সভা-সমাবেশ করেছেন তিনি। এটিএম আলমগীর ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখেন। তিনি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় লাকসাম থানার মুজিব বাহিনীর ‘ডেপুটি লিডার’ ছিলেন।

আরও পড়ুন