কুমিল্লা
শুক্রবার,১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৩ আশ্বিন, ১৪২৭ | ২৯ মুহাররম, ১৪৪২

কুমিল্লায় আ.লীগ নেতা নাগরিক ঐক্যের প্রার্থী !

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করতে নিজ দলের প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শরীক দল নাগরিক ঐক্য। কুমিল্লার ৩টি সংসদীয় আসনসহ সারা দেশে মোট ৩৫টি আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে দলটি।

নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ক শহীদুল্লাহ কায়সার স্বাক্ষরিত এক তালিকার মাধ্যমে মনোনয়ন চূড়ান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দলটি।

শনিবার বিকালে প্রকাশিত ওই তালিকা অনুযায়ী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না নির্বাচনে লড়বেন বগুড়া-২ আসন থেকে।

ওই তালিকায় সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের ঢাকা বিভাগের আইনবিষয়ক সম্পাদক ও আ’লীগ নেতা ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরীকে কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনের জন্য নাগরিক ঐক্যের প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে।

ব্যারিস্টার সোহরাব দীর্ঘদিন ধরে বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়ায় আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য গণসংযোগ করে আসছিলেন।

শনিবার রাতে এই খবর কুমিল্লা-৫ সংসদীয় আসনের বুড়িচং ও ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলায় ছড়িয়ে পড়লে আওয়ামী লীগের দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগণের মধ্যে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা ছড়িয়ে পড়ে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরী বলেন, আমি দশম সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়েছিলাম। কিন্ত পাইনি। মনোনয়ন না পেয়েও দল থেকে বিচ্যুত হয়নি।

আমি বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া এই দুই উপজেলায়ই দলীয় কাজ করে আসছি। কিন্তু সর্বশেষ দেখলাম, দল আমার ত্যাগ আর পরিশ্রমের মূল্যায়ন এবারোও করবে না।

তাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সহযোগী সংগঠন মাহমুদুর রহমান মান্নার নেতৃত্বাধীন নাগরিক ঐক্যে যোগ দিয়েছি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে শামিল হওয়ার জন্য।

নাগরিক ঐক্য মনোনয়ন দিলেও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যদি মনোনয়ন না দেয়, তখন কি করবেন? জানতে চাইলে সদ্য যোগ দেয়া এই নেতা বলেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে যাকেই ধানের শীষ দেয়া হবে আমরা তার জন্যই কাজ করব এবং তাকে বিজয়ী করব ইনশাল্লাহ।’

এছাড়া কুমিল্লার আরো দুই প্রার্থী হচ্ছেন কুমিল্লা-২ আসনে ইকবাল কবির ও কুমিল্লা-১১ আমিনুল ইসলাম বাদশা।

আরও পড়ুন