কুমিল্লা
শনিবার,৮ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
২৫ বৈশাখ, ১৪২৮ | ২৫ রমজান, ১৪৪২

‘লাকসাম-মনোহরগঞ্জের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিন’

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, লাকসাম-মনোহরগঞ্জের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিন। আমার নির্বাচনী আসনে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করেছি। ইনশাআল্লাহ আবার এমপি নির্বাচিত হলে অসমাপ্ত উন্নয়ন কর্মকান্ডগুলো বাস্তবায়ন করা হবে। নৌকা মানে দেশ ও দেশের মানুষের উন্নয়ন। নৌকা মার্কায় ভোট দিলে দেশের মানুষ শান্তিতে থাকে। নৌকা মার্কায় ভোট দিলে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়।

রবিবার (২৩ ডিসেম্বর) মনোহরগঞ্জ উপজেলার ঝলম দক্ষিণ ও ঝলম উত্তর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে উঠান বৈঠক ও গণসংযোগ চলাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

আরও পড়ুন: এক ক্লিকে একাদশ নির্বাচনের কুমিল্লা জেলার সব খবর

তিনি আরো বলেন, আমার নির্বাচনী আসন লাকসাম ও মনোহরগঞ্জে ১৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দিয়েছেন প্রত্যেক গ্রামকে শহরে রুপান্তর করা হবে। বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ স্বাধীন করেছিলেন তার সফলভাবে বাস্তবায়ন করছেন তারই সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বের কারণে স্বাধীনতার সুফল আজ ঘরে ঘরে পৌঁছে যাচ্ছে। এসময় জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা প্রফেসর গোলাম মোস্তফা উপস্থিত থেকে বলেন, লাকসাম-মনোহরগঞ্জে জাতীয় পার্টির কোন প্রার্থী না থাকায় আমরা মোঃ তাজুল ইসলামকে সমর্থন জানাচ্ছি। তাই এই আসনে জাতীয় পার্টির কর্মী ও সমর্থকদেরকে ৩০ ডিসেম্বর সারাদিন নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি।

উঠান বৈঠক ও গণসংযোগে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মাষ্টার আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী, সহ সভাপতি শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন, য্গ্মু সাধারণ সম্পাদক আবদুল মজিদ খাঁন রাজু, মনির হোসেন হেলাল, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সদস্য এড. তানজিনা আক্তার, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ফাহমিদা সুলতানা মিলি, লাকসাম উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আবদুল মন্নান মনু, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার জাকির হোসেন সাগর,

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, আবুল বাশার মজুমদার, ঝলম দক্ষিণ ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান শাহীন জিয়া, ঝলম উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইকবাল হোসেন, আওয়ামীলীগ নেতা নজরুল ইসলাম, লায়ন হারুনুর রশিদ, আমির হোসেন মন্টু, মোবারক হোসেন হাওলাদার, মীর মোশারফ হোসেন বাবুল, অহিদুজ্জামান অপু, আনু মিয়া মজুমদার, সোলাইমান মিয়া, হাজী মোবারক হোসেন, আবদুল করিম, আবদুর রব মোল্লা, সৌদি আরব প্রবাসী মিজানুর রহমান সুমন, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা নাছির উদ্দিন, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম জানে আলম, এমএইচ নোমান, আমির হোসেন, মহি উদ্দিন, যুবলীগ নেতা শাহাদাত হোসেন, জহিরুল ইসলাম, আবুল বাশার, আশিকুর রহমান কিরণ, নজরুল ইসলাম তুষার, আলমগীর হোসেন, আবুল হাশেম বাদল,

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক মোঃ সেলিম কাদের চৌধুরী, যুগ্ম আহবায়ক বেল্লাল হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন বাবলু, সহ সভাপতি মোঃ আলী আক্কাছ, সহ সভাপতি মোঃ আমিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকী, ছাত্রলীগ নেতা ইফরাত আহমেদ ইফু, রাসেল চৌধুরী, জাহিদুল ইসলাম মুন্না, মীর হোসেন রুবেল, আবুল কালাম মজুমদারসহ উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

আরও পড়ুন