কুমিল্লা
বৃহস্পতিবার,১ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১৬ আশ্বিন, ১৪২৭ | ১৩ সফর, ১৪৪২

কুমিল্লা-ভারত সীমান্তে বিজিবির বিশেষ নজরদারি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে কুমিল্লার ভারত সীমান্তবর্তী ৭৪ কিলোমিটার এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া সীমন্তবর্তী ৪৪ কিলেমিটার এলাকা সীমান্ত সিল করে (বিশেষ নজরদারি) দিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। নির্বাচনকে সামনে রেখে অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ, মাদক ও মানব পাচার ঠেকাতেই বিশেষ নজরদারিতে রাখা হয়েছে সীমান্ত এলাকা।

কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সীমান্ত এলাকার বিপরীতে ওপারের ভারতের ত্রিপুরা সীমান্তে টহল জোরদার করেছে বিএসএফ। সীমান্তে বাড়তি নজরদারির পাশাপশি গোয়েন্দা তৎপরতাও বাড়ানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: এক ক্লিকে একাদশ নির্বাচনের কুমিল্লা জেলার সব খবর

তবে এই বিশেষ নজরদারির কারণে কুমিল্লার বিবির বাজার ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া চেকপোস্ট দিয়ে বৈধপথে যাতায়াতকারী যাত্রীদের কোন সমস্যা হবে না বলে জানান কাস্টমস ও ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ।

পাওয়া তথ্যে জানা যায়, কুমিল্লা জেলার দীর্ঘ সীমান্ত এলাকাজুড়ে রয়েছে কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া, বুড়িচং, আদর্শ সদর, সদর দক্ষিণ ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলা এলাকা দিয়ে বাংলাদেশের চিহ্নিত অপরাধীরা পুলিশের তাড়া খেয়ে সীমান্ত পাড় হয়ে ওপারে যেতে না পারে। আর অবৈধভাবে ত্রিপুরায় লুকিয়ে থাকা বাংলাদেশের চিহ্নিত অপরাধীরা যাতে করে নির্বাচনের সময়ে এ দেশে না আসতে পারে।

নির্বাচকালীন সময়ে বিশৃঙ্খলা রোধে কুমিল্লার ৭৪ কিলোমিটার এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৪৪ কিলোমিটার সীমান্তে সিল (বিশেষ নজরদারি) করে দিয়েছে বিজিবি। এই কারণেই বাংলাদেশের সীমান্তে বিজিবি ও ওপারের সীমান্তে বিএসএফ সীমান্ত এলাকা বিশেষ নজরদারিতে রেখেছে।

বিজিবি ২৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মুহাম্মদ গোলাম কবীর কুমিল্লার বার্তা ডটকমকে বলেন, অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ, মাদক ও মানব পাচার ঠেকাতেই নির্বাচন সময়ে এই বিশেষ নজরদারি। অন্যান্য সময়ে সীমান্তে নজরদারি থাকলেও নির্বাচনকালীন সময়ে বিশৃঙ্খলা রোধে সীমান্তে কড়া নজরদারির ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এ বিষয়ে বিএসএফের সহায়তাও চাওয়া হয়েছে। বিএসএফ-বিজিবি যৌথভাবেই টহল জোরদার করেছে নিজ নিজ সীমান্তে।

আরও পড়ুন