কুমিল্লা
সোমবার,১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ
১ আশ্বিন, ১৪২৬ | ১৬ মুহাররম, ১৪৪১
Bengali Bengali English English

চৌদ্দগ্রামে অর্থ আত্মসাতের দায়ে কলেজের অধ্যক্ষ বোস্তামী ওএসডি

অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামী / ফাইল ছবি

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে অর্থ আত্মসাতের দায়ে বিজয়করা স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামীকে ওএসডি করেছে পরিচালনা কমিটি। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অধ্যক্ষের দাপ্তরিক ও প্রশাসনিক দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার এবং প্রাতিষ্ঠানিক বেতন স্থগিত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) নতুন কুমিল্লাকে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন পরিচালনা কমিটির সদস্য আগা আবদুল খালেক চৌধুরী।

জানা গেছে, অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামী বিভিন্ন সময়ে বিদ্যালয় ফান্ডের ৩ লাখ ৬ হাজার ৩’শত ৭২ টাকা আত্মসাত করেন। গত ২৭ অক্টোবর লেখাপড়ার মান উন্নয়নের লক্ষে গৃহিত পরিচালনা কমিটির সভায় সিদ্বান্ত বাস্তবায়নে কোন উদ্যোগ গ্রহন না করায় সাত কর্মদিবসের মধ্যে তাকে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেয়া হয়। এছাড়া সর্বশেষ আত্মসাতকৃত ১ লাখ ৮৪ হাজার ৩শত ৯৩ টাকা এক মাসের মধ্যে জমা দিতে বলা হয়।

আরও পড়ুন: এক ক্লিকে একাদশ নির্বাচনের কুমিল্লা জেলার সব খবর

পরিচালনা কমিটির নির্দেশ অমান্য করে অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামী টাকা পরিশোধ না করায় ১৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত পরিচালনা কমিটির সভায় তাকে ওএসডি করা হয়। পরবর্তী সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত বায়েজীদ বোস্তামীর দাপ্তরিক ও প্রশাসনিক সমস্ত দ্বায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার এবং প্রাতিষ্ঠানিক বেতন স্থগিত করা হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন বিজয়করা স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সদস্য আগা একরাম চৌধুরী।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিচালনা কমিটির সদস্য আগা মাহমুদুল হক চৌধুরী, আগা আবদুল খালেক চৌধুরী, নেওয়াজুল ইসলাম, বেলাল হোসেন, শিক্ষক প্রতিনিধি বদরুদ্দোজা হেলাল, নৃত্য গোপাল মজুমদার, কাজী খালেদা আক্তার। অবশ্য বায়েজীদ বোস্তামী সর্বশেষ আত্মসাতকৃত ১ লাখ ৮৪ হাজার ৩’শ ৯৩ টাকা ১৭ ডিসেম্বর ব্যাংকের মাধ্যমে পরিশোধ করেন। চারবারে অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামী থেকে আত্মসাতকৃত ৩ লাখ ৬ হাজার ৩’শত ৭২ টাকা উদ্ধার করেছে পরিচালনা কমিটি।

এর আগে ২৩ সেপ্টেম্বর রোববার বিদ্যালয়ের শিক্ষক মহিউদ্দিন নবম শ্রেণির ছাত্রী লুইফা আক্তারকে তুচ্ছ কারণে পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। খবর পেয়ে অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামী ঘটনাস্থলে গিয়ে উল্টো ছাত্রীকে ধমক দেন। পরে পরিবারের লোকজন গিয়ে ছাত্রীকে উদ্ধার শেষে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। এ নিয়ে পরদিন গত সোমবার বিদ্যালয়ে একটি বৈঠকে অভিযুক্ত শিক্ষক মহিউদ্দিনকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়। এ ঘটনায় সমালোচনার মুখে পড়েন অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামী।

পরিচালনা কমিটির সদস্য আগা আবদুল খালেক চৌধুরী তার ব্যবহৃত ফেসবুক আইডিতে বৃহস্পতিবার উল্লেখ করেন, ‘শিক্ষক নামের কলঙ্ক বিজয়করা স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামীকে অর্থ কেলেঙ্কারীর দায়ে ১৩ ডিসেম্বর ওএসডি করে প্রাতিষ্ঠানিক বেতন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে’।

এ ব্যাপারে অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামীর বক্তব্যে জানতে চাইলে তিনি সরাসরি দেখা করবেন বলে লাইন কেটে দেন।

অধ্যক্ষ বায়েজীদ বোস্তামীর অর্থ আত্মসাতের বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আজহারুল ইসলাম ভুঁইয়া জানান, ‘বিষয়টি আমাকে কেউ জানায়নি’।

আরও পড়ুন