কুমিল্লা
সোমবার,২৪ জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১০ মাঘ, ১৪২৮ | ২০ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩

পরিকল্পনা মন্ত্রীসহ ৪ লাখের বেশি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হলেন যারা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের রেকর্ড গড়েছেন ডজনখানেক প্রার্থী। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে অনেক হেভিওয়েটের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে। বিপরীতে ক্ষমতাসীন দলের বহু প্রার্থী লাখ লাখ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন।

ভোট প্রাপ্তির দিক থেকে অতীতের যে কোনো রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছেন এবারের নির্বাচনে বেশ কয়েকজন প্রার্থী। স্বাভাবিকভাবেই ভোট প্রাপ্তির দিক থেকে ইতিহাস গড়া এসব প্রার্থী নৌকা মার্কার।

এবার সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন ডা. এনামুর রহমান। তিনি ঢাকা-১৯ আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী ছিলেন। এই আসনে অবশ্য দেশের ৩০০ আসনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভোটার ছিল, ৭ লাখ ৪৭ হাজার ৩০১ জন।

আরও পড়ুন: এক ক্লিকে একাদশ নির্বাচনের কুমিল্লা জেলার সব খবর

এনামুর রহমান একাই পেয়েছেন এই আসনে প্রায় ৫ লাখ ভোট। অর্থাৎ ৪ লাখ ৮৮ হাজার ৯৮১টি ভোট পেয়েছেন তিনি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির দেওয়ান মো. সালাউদ্দিন পেয়েছেন ৬৯ হাজার ৪১০ ভোট। অর্থাৎ ৪ লাখ ১৯ হাজার ৫৭১ ভোটের বিশাল ব্যবধানে জয়লাভ করেছেন এনামুর রহমান। এত বড় ব্যবধানে জয় বাংলাদেশের ইতিহাসে রেকর্ড।

ডা. এনামের পাশাপাশি চার লক্ষাধিক ভোট ও তিন লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে পাস করেছেন গাজীপুর-১ আসনে নৌকার প্রার্থী আ ক ম মোজাম্মেল হক। তার প্রাপ্ত ভোট ৪ লাখ ১ হাজার ৫৩৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের চৌধুরী তানভীর আহম্মেদ সিদ্দিকী ৯২ হাজার ৪১০ ভোট পেয়েছেন।

আওয়ামী লীগের জাহিদ আহসান রাসেল প্রতিদ্বন্দ্বী সালাহউদ্দিন সরকারকে ৩ লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেছেন। জাহিদ আহসান রাসেল পেয়েছেন ৪ লাখ ১২ হাজার ১৪০

ভোট আর বিএনপির সালাউদ্দিন সরকার পেয়েছেন ১ লাখ ১ হাজার ৪০ ভোট।

কুমিল্লা-১০ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলেন বর্তমান সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি পেয়েছেন ৪ লাখ ৫ হাজার ২৯৯ ভোট। সুত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

 

আরও পড়ুন