কুমিল্লা
শনিবার,৮ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
২৫ বৈশাখ, ১৪২৮ | ২৫ রমজান, ১৪৪২

ফেনীতে কুকুরের কামড়ে শিশু-নারীসহ আহত ২০

প্রতীকী ছবি

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার চর চান্দিয়া, চর দরবেশ ও সদর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে চার দিনে পাগলা কুকুরের কামড়ে শিশু-নারী ও প্রাপ্ত বয়স্কসহ ২০ জন আহত হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানা যায়, গত কয়েক দিনে উপজেলার চর চান্দিয়া ইউনিয়নের সওদাগর হাট, দক্ষিণ চর চান্দিয়া, চর দরবেশ ইউনিয়নের আদর্শ গ্রাম ও পশ্চিম চর দরবেশ, সদর ইউনিয়নের সুজাপুর, চর খোয়াজ এলাকায় শীতের সঙ্গে হঠাৎ করে পাগলা কুকুরের উপদ্রব বেড়ে গেছে।

গত কয়েক দিনে কুকুরের কামড়ে আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন মো. মিনহাজুর রহমান (৫), মো. শাহীন (৪), মো. স্বপন (৬), নাছিমা খাতুন (৪০), নুর ইসলাম (৫), আবুল কাসেম (৪২), সাইফুল ইসলাম (১৭), বিবি খতিজা (২৭), ইব্রাহীম (২১), রহিম উল্যাহ (২২), জসিম উদ্দিন (৩৫), জামাল উদ্দিন (৬০)। বাকিরা বিভিন্ন ক্লিনিক থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।

মঙ্গলবার হাসপাতালে গিয়ে কথা হয় চর চান্দিয়া ইউনিয়নের সওদাগর হাট এলাকার শিশু মিনহাজুর রহমানের মা হাসিনা খাতুনের সঙ্গে।

তিনি বলেন, সকালে তিনি বাড়ির পাশে একটি জমিতে ধান শুকাতে যান। মিনহাজ তার পাশে বসে খেলছিল। হঠাৎ একটি কুকুর এসে তার বাম হাতে কামড় দিয়ে টেনে তাকে মাটিতে ফেলে দেয়। এ সময় তিনি লাঠি দিয়ে পিটিয়ে কুকুরটিকে তাড়ানো চেষ্টা করেন। কুকুরটি তার ওপরও ঝাঁপিয়ে পড়ার চেষ্টা করে। ক্ষুধার্ত হয়ে কুকুরটি হামলা করেছিল বলে তার ধারণা। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ওবায়দুল হক বলেন, গত কয়েকদিনে কুকুরের কামড়ে আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ১০ জন রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। অনেকে স্থানীয় ক্লিনিক থেকেও চিকিৎসা নিয়েছেন।তিনি বলেন, বেশ কয়েকজন রোগীর শরীরের একাধিক স্থানে কুকুরের কামড়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. নুরুল আলম বলেন, কুকুরের কামড়ে আহত রোগীদের প্রাথমিক চিকিৎসা ও টিকা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আহতদেরকে নিয়মিত ওষুধ ও টিকা চালিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন