কুমিল্লা
রবিবার,২৫ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৯ কার্তিক, ১৪২৭ | ৭ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২

খুলনাকে হারিয়ে কুমিল্লার ভিক্টোরিয়ান্সের বিশাল জয়

এবারের বিপিএল যেন তামিমের জন্য না। কেমন যেন অচেনা এক তামিমকে দেখছে বাইশ গজে। দেশ সেরা এই ওপেনারের ব্যাটে রান নেই। হতাশা সমর্থকদেরও। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স গত পাঁচ ম্যাচের তিনটিতে জয় পেলেও দলের জয়ে ভূমিকা ছিল না এই বাঁহাতি ওপেনারের।

অবশেষে ষষ্ঠ ম্যাচে এসে রান পেলেন তামিম ইকবাল। এর আগে পাঁচ ম্যাচে তামিমের রান ছিল যথাক্রমে ৩৫, ৪, ২১, ০, ০। আজ খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে খেললেন ৪২ বলে ৭৩ রানের ইনিংস। ২৮ বলে পূর্ণ করেন অর্ধশতক!

ঢাকায় চার ম্যাচের কোনও ম্যাচে জয় না পাওয়া খুলনা টাইটানসের ভাগ্য ফিরেছে সিলেটে গিয়ে। এখানে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রাজশাহী কিংসকে হারিয়ে আসরের প্রথম জয় পায় টাইটানসরা। শুক্রবার সন্ধ্যায় দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে টস জিতে ভিক্টোরিয়ানস অধিনায়ক ইমরুল কায়েস ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় টাইটানস অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহকে।

প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৮১ রানের বিশাল লক্ষ্য দাঁড় করায় কুমিল্লার সামনে। টাইটানস ওপেনার জুনাইদ সিদ্দিকী খেলেন ৪১ বলে ৭০ রানের ইনিংস। এছাড়া আল আমিন করেন ৩২, ডেভিড মালান করেন ২৯ রান।কুমিল্লার হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন শাহীদ আফ্রিদি। ওয়াহাব রিয়াজ নেন ২টি ও ১টি উইকেট নেন সাইফুদ্দিন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে কুমিল্লার দুই ওপেনার তামিম ইকবাল আর এনামুল হক বিজয় মিলে করেন ১১৫ রানের জুটি। ৩৭ বলে ৪০ রান করা বিজয়কে ফেরান রিয়াদ আর তামিমকে ফেরান লাসিথ মালিঙ্গা।এরপর দলীয় ১৫৩ রানের মাথায় ভিক্টোরিয়ানস অধিনায়কের ১১ বলে ২৮ রান করে ফেরার পর কিছুটা কঠিন হয়ে যায় সহজ ম্যাচ।এরপর একই ওভারে ৯ বলে ১২ রান করা করে আফ্রিদি আর জিয়াউর রহমানকে ফিরিয়ে কুমিল্লার জয়ের পথ আরও কঠিন করে তোলেন জুনায়েদ খান।

শেষ ওভারে কুমিল্লার লাগে ৮ রান। কার্লোস ব্রেথওয়েটের ওভারে এক ছয় আর এক চারে জয় তুলেন থিসারা পেরেরা।ছয় ম্যাচের চারটিতে জিতে পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থান ধরে রেখেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস আর পয়েন্ট তালিকায় তলানিতেই থেকে গেল খুলনা টাইটানস।

আরও পড়ুন