কুমিল্লা
সোমবার,১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ
১ আশ্বিন, ১৪২৬ | ১৬ মুহাররম, ১৪৪১
Bengali Bengali English English

৬১তম মাসিক সভা কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ :

‘লিগ্যাল এইড অফিসের মামলা আদালতে মামলার চাপ কমায়’

কুমিল্লা জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির ৬১তম মাসিক সভা বিগত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা ও দায়রা জজ এবং জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান মোঃ আলী আকবরের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যদের মধ্যে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক (জেলা জজ) মোঃ আব্দুল আউয়াল, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হোসেন সিদ্দিক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাখাওয়াত হোসেন সহ কমিটির সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা ও দায়রা জজ এবং জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান জনাব মো আলী আকবর কুমিল্লাতে দায়িত্বগ্রহণের পর এটি প্রথম মাসিক সভা হওয়ায় তাকে কমিটির পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে বরণ করা হয়।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনার ও আয়োজনের দায়িত্বে ছিলেন জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার (সিনিয়র সহকারী জজ) ফারহানা লোকমান। তিনি কুমিল্লা জেলার বিগত বছরের আইনি সেবার কার্যক্রম উপস্থাপন করেন। তার প্রতিবেদন হতে দেখা যায় ২০১৮ সালে ১০৬৭টি মামলায় অসহায় ব্যক্তির পক্ষে লিগ্যাল এইড অফিস হতে আইনজীবী নিয়োগ করা হয়েছে, ৯২৯ জনকে আইনী পরামর্শ দেয়া হয়েছে, বিরোধ বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি বা আপোস কার্যক্রমের জন্য ৩৩৪ টি আবেদনপত্র জমা হয়েছে যার মধ্যে ২৩৩টি নিষ্পত্তি করা হয়েছে। মধ্যস্থতার মাধ্যমে মোট ৪১৮৩৩৫৫ টাকা পক্ষগণকে আদায় করে দেয়া হয়েছে।

মুক্ত আলোচনায় উপস্থিত সদস্যগণ লিগ্যাল এইড কার্যক্রম আরো এগিয়ে নেয়ার বিষয়ে বিভিন্ন মতামত ব্যক্ত করেন। এর মধ্যে প্রচার প্রচারণা ও প্যানেল আইনজীবিদের নিয়ে সমন্বয় সভা করার বিষয়টি প্রাধান্য পায়। সবশেষে সভার সভাপতি জেলা ও দায়রা জজ জনাব মোঃ আলী আকবর তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন বিগত বছর গুলোর তুলনায় ২০১৮ সালে কুমিল্লা জেলায় লিগ্যাল এইডের কার্যক্রম অনেক বিস্তার লাভ করেছে।

এজন্য তিনি সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান। একটি বিরোধ থেকে একাধিক মামলার উৎপত্তি হয়। মামলা পূর্ববর্তী আপোস কার্যক্রমের ফলে অনেক বিরোধ নিয়ে পক্ষগণ মামলা দায়ের করা থেকে বিরত থাকেন। ফলে আদালতের উপর নতুন মামলার চাপ কমে ও পক্ষদের হয়রানিও কমে। তাই তিনি বিরোধ নিস্পত্তিতে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি বা আপোস কার্যক্রমের উপর গুরূত্ব আরোপ করেন ও সকলকে বিরোধ হলেই মামলা না করে আপোসের চেষ্টা করতে লিগ্যাল এইড অফিসে প্রেরণের পরামর্শ দেন।

তিনি আরও বলেন সরকারি লিগ্যাল এইড কার্যক্রম সরকারের একটি মহৎ উদ্যোগ। সরকার অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে এই কার্যক্রমে পরিচালনা করেন। ফলে এই উদ্যোগকে আরো সফল করতে যে যেই জায়গায় আছে সেই জায়গা থেকেই কাজ করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান।

আরও পড়ুন