কুমিল্লা
মঙ্গলবার,৩ অক্টোবর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৮ আশ্বিন, ১৪৩০ | ১৭ রবিউল আউয়াল, ১৪৪৫
শিরোনাম:
অভি’কে সিইও হিসেবে অনুমোদন দিলো আইডিআরএ কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন

কুমিল্লায় মহাসড়কে ময়লার আগুনে পুড়ছে শত গাছ!

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের দু’পাশে দাঁড়িয়ে আছে সারি সারি গাছ। এ দৃশ্যটি দেখে যে কারো নয়ন জুড়াবে মুহুর্তের মধ্যেই। তবে কুমিল্লার অংশে এসব বৃক্ষের উপর চালানো হচ্ছে নির্যাতন। ভ্যানে করে ময়লা-আবর্জনা এনে ফেলা হচ্ছে বৃক্ষের গোড়ায়। শুধু তা-ই নয়, এসব ময়লায় ধরিয়ে দেওয়া হচ্ছে আগুন। বুধবার (৩০ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকার-চট্রগ্রম মহাসড়কের চান্দিনায় দেখা যায় এ দৃশ্য।

মহাসড়কের পাশে কুমিল্লার দাউদকান্দি, গৌরীপুর, ইলিয়টগঞ্জ ও চান্দিনা এলাকা জুড়ে রয়েছে ময়লার স্তুপ। এসব ময়লা কোথাও সরিয়ে না নিয়ে দেওয়া হচ্ছে আগুন। আর ওই আগুনে পুড়ে মরছে মহাসড়কের পাশে পরিবেশ বান্ধব মূল্যবান অনেক গাছ। দীর্ঘদিন এমন অবস্থা চলতে থাকায় অধিকাংশ গাছ পুড়ে কয়লা হয়ে গেছে। ক্রমশই গাছগুলো মরে মহাসড়কের ওপর ভেঙ্গে পড়ছে গাছের ডাল-পালা। এতে যে কোন সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছে মহাসড়কের চলাচলরত গাড়ি চালক ও যাত্রীরা।

স্থানীয় লোকজন বলছেন, এভাবে বর্জ্যে আগুন দেওয়ায় মরে গেছে অন্তত ১০০ টিরও বেশি মহামূল্যবান গাছ। স্থানীয় বাসিন্দা জামাল হোসেন নতুন কুমিল্লাকে বলেন, বছরের পর বছর এলাকার সব গৃহস্থালি বর্জ্য ভ্যান ও ভটভটিতে করে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের পাশে ফেলা হয়। পরে ওই আগুন দিয়ে বর্জ্য পোড়ানো হয়। এ কারণে বহু গাছ মরে গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে ময়লা ফেলে রাখা হয়েছে। চিপসের মোড়ক, কাগজ, কলার খোসা, কোমল পানীয়’র পরিত্যক্ত বোতল। এরকম বিভিন্ন ময়লা আবর্জনা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। রয়েছে ময়লার স্তুপ। গাছের গোড়ায় ফেলা ময়লায় আগুন দিতে দেখা গেছে।

অন্যদিকে সড়কের পাশের অনেক গাছের ডালে পাতা নেই। গাছ শুকিয়ে কাঠ হয়ে গেছে। সড়কের পাশে ময়লা ফেলার সময় কথা হয় পরিচ্ছন্নতাকর্মী রনি ও তমালের সঙ্গে। এক বছর ধরে তারা নিয়মিত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে ময়লা ফেলছেন। তারা জানান, স্থানীয় উদ্যোগে বাসাবাড়ি থেকে গৃহস্থালি বর্জ্য সংগ্রহ করে সব ময়লা ভ্যানে করে এনে এসব জায়গায় ফেলা হয়।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে বর্জ্য স্তুপ করে রাখা হয়েছে, বর্জ্য রেখেই আগুনে পোড়ানো হচ্ছে। এতে একদিকে বর্জ্যরে বিষাক্ত ধোঁয়ায় আশপাশের পরিবেশ বিপন্ন হয়ে উঠছে অন্যদিকে বর্জ্যরে দুর্গন্ধে মহাসড়ক ধরে চলাচলকারী পথচারীদের দুর্ভোগ বাড়াচ্ছে।

এই সড়কে চলাচলকারী মোহনা হাসপাতালের ডা: শফিকুল ইসলাম নতুন কুমিল্লাকে বলেন, মহাসড়কের পাশে ময়লা আবর্জনা ফেলায় উক্ত স্থান দিয়ে চলাচলের সময় আমাদের নাক চেপে রাখতে হয়। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে চান্দিনার যে অংশে ময়লা ফেলা হয়, তার পাশে একটি বাসায় বসবাস করেন আবদুল মতিন নামের এক ব্যক্তি।

তিনি বলেন, ময়লা ফেলার কারণে ওই এলাকা বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। কয়েক বছর থেকে প্রশাসনের সামনে সড়কে ময়লা ফেলা হচ্ছে। আগুন দিয়ে গাছ মেরে ফেলা হচ্ছে। অথচ কারও কোনো মাথাব্যথা নেই। আগুনে পুড়ে যাওয়া গাছের গোড়া আগুনে পুড়ে যাওয়া গাছের গোড়া সড়কের ওপরে ময়লা ফেলায় যান চলাচলের পথ সংকুচিত হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ কুমিল্লা অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আহাদ উল্লাহ নতুন কুমিল্লাকে বলেন, ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের পাশে ময়লা ফেলে গাছ মেরে ফেলার বিষয়টি ভীষণ উদ্বেগজনক। কোনোভাবে সড়কের ওপর ময়লা ফেলা যাবে না। শিগগিরই এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন