কুমিল্লা
বুধবার,৩০ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ৫ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪
শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি

ফলোআপ :

কুমিল্লায় ৪০ মিনিট দেরিতে প্রশ্ন দেয়ার ঘটনায় দুই তদন্ত কমিটি

ফাইল ছবি

কুমিল্লার দেবিদ্বারে এসএসসি পরীক্ষা শুরু হওয়ার ৪০ মিনিট পর একটি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের মাঝে রচনামূলক (সৃজনশীল) প্রশ্ন বিতরণ করার অভিযোগে পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দুয়ারিয়া এজি মডেল একাডেমীর অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব মো. আবু সেলিম ভূঁইয়াকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও এ ঘটনায় বোর্ড ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। শনিবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো: রুহুল আমিন ভূঁইয়া নতুন কুমিল্লাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন>> কুমিল্লা বোর্ডে ১৮ সালের প্রশ্নে এসএসসি পরীক্ষা দিলো ১১৩ পরীক্ষার্থী!

জানা যায়, এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে জেলার দেবিদ্বার উপজেলার দুয়ারিয়া এজি মডেল একাডিমী কেন্দ্রে ৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৫৭৬ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। বাংলা প্রথমপত্র পরীক্ষার জন্য বোর্ড থেকে ৪ নং সেটের (গাঁদা) রচনামূলক প্রশ্ন কেন্দ্রে বিতরণের নির্দেশ দেয়া হয়। কিন্তু প্রশ্নের প্যাকেটে ৪ নং সেট না থাকায় বিপাকে পড়ে কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ। খবর পেয়ে কেন্দ্রে পৌঁছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ অন্যান্যরা। পরে বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে প্রশ্ন সংগ্রহ করে প্রায় ৪০ মিনিট পর প্রশ্ন বিতরণ করে অতিরিক্ত সময় বাড়িয়ে পরীক্ষা নেয় কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ। খবর পেয়ে বিষয়টির তদন্তে নামে বোর্ড ও জেলা প্রশাসন।

সন্ধ্যায় বিষয়টি তদন্ত করতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা ও আইসিটি) মো. মাঈনুদ্দিনকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন- দেবিদ্বার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রবীন্দ্র চাকমা ও দেবিদ্বার থানা পুলিশের ওসি জহিরুল আনোয়ার।

আরও পড়ুন>> কুমিল্লায় ৪০ মিনিট পর পাশের কেন্দ্র থেকে প্রশ্ন এনে ৫৭৬ জনের পরীক্ষা!

অপরদিকে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের পক্ষ থেকেও পৃথক আরও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের উপ-বিদ্যালয় পরিদর্শক কামরুজ্জামানকে আহ্বায়ক এবং উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ সহিদুল ইসলাম ও উপ-সচিব (প্রশাসন) একেএম শাহাব উদ্দিনকে সদস্য করে গঠিত তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। রোবারের মধ্যেই কমিটিকে রিপোর্ট দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. রুহুল আমিন ভূঁইয়া নতুন কুমিল্লাকে জানান, এ ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে তদন্ত কমিটি গঠন করে দেবিদ্বারে পাঠানো হয়েছে। এরই মধ্যে দায়িত্বে অবহেলার কারণে ওই কেন্দ্রের সচিবকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন