কুমিল্লা
শুক্রবার,২৩ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
১০ বৈশাখ, ১৪২৮ | ১০ রমজান, ১৪৪২

চৌদ্দগ্রামে ইটভাটায় ১৩ শ্রমিক নিহতের ঘটনায় ১৪ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ

নিহত ১৩ শ্রমিকের মৃতদেহ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ইটভাটার ট্রাক উল্টে ১৩ শ্রমিক নিহতের ঘটনায় প্রত্যেকের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিয়েছেন মালিকপক্ষ। নিহতদের পরিবারকে ১ লাখ টাকা ও আহত দুইজনকে ৫০ হাজার করে মোট ১৪ লাখ টাকা প্রদান করেছেন এমরান ব্রিকফিল্ডের স্বত্বাধিকারী আব্দুর রাজ্জাক। সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মালিকপক্ষের দেওয়া ১৪ লাখ টাকা নীলফামারী জেলা প্রশাসকের অ্যাকাউন্টে জমা দেওয়া হয়েছে।

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শেখ শহিদুল ইসলাম নতুন কুমিল্লাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী হতাহত শ্রমিকদের পরিবারকে ইটভাটা মালিকের দেওয়া ১৪ লাখ টাকা নীলফামারী জেলা প্রশাসকের অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছে। নিহত ও আহত শ্রমিকদের বাড়ি নীলফামারী জেলায়। এ কারণে সেখানেই আনুষ্ঠানিকভাবে টাকাগুলো প্রত্যেকের পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

নিহতরা হলেন- শিমুল বাড়ীর মৃনাল চন্দ্র রায় (২১) ও মনোরঞ্জন চন্দ্র রায় (১৯), নিজপাড়ার সুরেশ চন্দ্র রায়ের ছেলে রঞ্জিত চন্দ্র রায় (৩০), জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে মোহাম্মদ সেলিম (২৮), সুনীল চন্দ্র রায় ছেলে তরুণ চন্দ্র রায় (২৫), কুড়াপাড়ের অমল চন্দ্র রায়ের ছেলে দীপু চন্দ্র রায় (১৯), একই গ্রামের রাম প্রসাদের ছেলে বিপ্লব (১৯), কৃশব চন্দ্র রায়ের ছেলে শঙ্কর রায় (২২), কামিক্ষার ছেলে অমৃত চন্দ্র রায় (২০), রাজবাড়ীর দিয়া বাড়ীর বিকাশ চন্দ্র রায়(২৮), একই গ্রামের ধলু চন্দ্র রায়ের ছেলে কনক চন্দ্র রায় (৩৫), পাঠানপাড়ার ফজলুল করিমের ছেলে মাসুম মিয়া (১৮) ও পাঠানপাড়ার নূর আলমের ছেলে মোহাম্মদ মোরসালিন (১৮)।

উল্লেখ্য, ২৫ জানুয়ারি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের এমরান ব্রিকফিল্ডে কয়লাবাহী ট্রাক উল্টে পাশেই শ্রমিকদের ঘরে পড়লে ঘুমন্ত অবস্থায় ১৩ শ্রমিক নিহত ও দুইজন আহত হয়। এ ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানায় ট্রাকচালক ও হেলপারকে অভিযুক্ত করে একটি মামলা করেন নিহতদের স্বজনরা।

আরও >> কুমিল্লায় ট্রাক উল্টে ঘুমন্ত ১৩ শ্রমিকের মৃত্যু

আরও পড়ুন