কুমিল্লা
সোমবার,১ মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
১৬ ফাল্গুন, ১৪২৭ | ১৬ রজব, ১৪৪২

কুমিল্লায় নিখোঁজের ১৯ ঘন্টা পর মৎস্য কর্মীর লাশ মিললো হ্যাচারীতে

নিহত আল-আমীন/ ছবি: নতুন কুমিল্লা

কুমিল্লার দেবিদ্বারে নিখোঁজের ১৯ ঘন্টা পর হ্যাচারী খামার থেকে আল আমীন (২৫) নামে এক মৎস্য কর্মীর লাশ উদ্ধার পুলিশ। সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে উপজেলার ভানী ইউনিয়নের সূর্যপুর গ্রামের সূর্য্যপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পেছনে ‘একতা হ্যাচারী’ থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে দেবিদ্বার থানা পুলিশ।

নিহত আল আমীন কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার গতি আসাম গ্রামের মোঃ রফিকুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ সূত্র যায়, উপজেলার ভানী ইউনিয়নের সূর্যপুর গ্রামে একতা হ্যাচারীর কর্মচারী মোঃ আল আমিনকে রবিবার রাত ৮টা থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। অনেক খোঁজা খোঁজির পর তাকে না পেয়ে সোমবার দুপুরে ওই হ্যাচারীর মালিক বেলাল হোসেন ‘একতা মৎস খামারে জাল ফেললে আল আমিনকে মৃত অবস্থায় জ্বালে আটকা অবস্থায় পাওয়া যায়। খবর পেয়ে দেবিদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মিঠুন সিংহ ঘটনাস্থল থেকে বিকাল সাড়ে ৫টায় লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।

হ্যাচারীর মালিক বেলাল উদ্দিন নতুন কুমিল্লাকে জানান, সূর্য্যপুর এবং কুটুম্বপুর এলাকায় তার আরো কয়েকটি হ্যাচারী ও মৎস খামার রয়েছে। তার বাড়ি জামালপুর’র মাদারগঞ্জ উপজেলার বিনোদটঙ্গী গ্রামে। তার পিতার নাম মৃতঃ সামসুল হক। সে এ এলাকায় প্রায় ২০ বছর যাবৎ হ্যাচারী ও মৎস খামার ব্যবসা করে আসছে। এসব খামারগুলোতে স্থানীয় শ্রমিক ছাড়াও তার নিজ এলাকা এবং কুড়িগ্রামের অনেক শ্রমিক আছে। আল আমিন অসুস্থ্য ছিল তার পেটের অসুখ ও পেট ব্যাথা ছিল, রবিবার রাত ৮টা থেকে সে নিখোঁজ হয়। সোমবার খামারে জাল ফেলে তাকে মৃত: অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ জহিরুল আনোয়ার নতুন কুমিল্লাকে জানান, আল আমিনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার পরিবারের লোকজন কুড়িগ্রাম থেকে রওয়ানা হয়েছেন। মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকালে মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। তদন্তের রির্পোট হাতে পেলে মৃত্যুর বিষয়টি পরিষ্কার হওয়া যাবে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন