কুমিল্লা
সোমবার,৩০ জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৬ মাঘ, ১৪২৯ | ৭ রজব, ১৪৪৪
শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি

ক্লাসে পড়া না পারায় দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রের বুকে লাথি!

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়া না পারায় সহকারী শিক্ষক সুমন চন্দ্র দেবনাথের লাথিতে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র মোঃ সজিব আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সজিবকে ফেনীর একটি হাসপাতালে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেখিয়েছে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও শিক্ষকদের একটি টিম। সন্ধ্যায় তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন সজিবের পরিবার। সজিব নারানকুরি গ্রামের পেয়ার আহম্মেদের ছেলে।

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, রোববার শিক্ষক সুমন চন্দ্র দেবনাথের ইংরেজী ক্লাস চলাকালিন সময়ে পড়া না পারা ও অমনযোগী হওয়ার অজুহাতে সজিবের বুকে লাথি মারে। এতে তাৎক্ষনিক সে আহত হয়ে পড়ে। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ায় অভিভাবক, ছাত্র-ছাত্রীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সুমন চন্দ্র দেবনাথে ব্যবহৃত মোবাইলে একাধিক বার ফোন করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সেলিম মিয়া নতুন কুমিল্লাকে জানান, ‘সামান্য ঘটনা। আমরা সমাধানের চেষ্টা করছি। ছাত্র সজিবকে ডাক্তার দেখানো হয়েছে’।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ ফারুক নতুন কুমিল্লা বলেন, ‘পড়া না পারায় এক শিক্ষকের হাতে এক ছাত্র সামান্য ব্যথা পেয়েছে। এটা সমাধান করা হয়েছে। আর কোন সমস্যা নেই। বিষয়টি শিক্ষা অফিসার ও সহকারী শিক্ষা অফিসারদের জানানো হয়েছে’।

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মোশারেফ হোসেন বলেন, ‘ঘটনাটি আমাকে অবহিত করা হয়েছে। বুধবার (৬ মার্চ) বিদ্যালয়ে গিয়ে তদন্ত করে বিস্তারিত জানাব’।

আরও পড়ুন