কুমিল্লা
সোমবার,৩০ জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
১৬ মাঘ, ১৪২৯ | ৭ রজব, ১৪৪৪
শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি

কুমিল্লায় ৮১-তেও বয়স্ক ভাতা মেলেনি কাপ্তানের নেছার

বৃদ্ধা নারী কাপ্তানের নেছা /ছবি: নতুন কুমিল্লা

কুমিল্লার মুরাদনগরে ৮১বছর পার হলেও কোন প্রকার সরকারি ভাতা জোটেনি বৃদ্ধা নারী কাপ্তানের নেছার। উপজেলার বাঙ্গরা পশ্চিম ইউনিয়নের দিঘীরপাড় গ্রামের ১ মেয়ের জননী স্বামীহারা এই বৃদ্ধার সহায় সম্ভল বলতে কিছু নেই। বয়সের ভারে রুগ্ন শরীর নিয়ে তপ্ত দুপুরে খাবারের সন্ধানে সড়কে হাটছেন এক বৃদ্ধা মহিলা, পড়নে একটি পুরনো কাপড় তাও বেশ কয়েক যায়গায় ছেড়া, বয়স বাড়ার সাথে সাথে শ্রবন শক্তিও কমে গেছে তার। উচ্চস্বরে কথা না বললে বোঝতে পারেন না তিনি।

স্বামী কেরামত আলী মারা গেছে প্রায় ৩০বছর আগে, ছেলে নেই একমাত্র মেয়েটি বিয়ে হয়ে গেছে। বিধবা কাপ্তানের নেছার ভিটে মাটি বলতে কিছু নেই, থাকেন প্রতিবেশির একটি রান্না ঘরে। অসহায় দেখে রাতের বেলা রান্না ঘরে থাকার যায়গা দিয়েছে তার পাশের এক প্রতিবেশী। রাত পোহালে খাবারের সন্ধানে হাটতে থাকে গ্রামে গ্রামে। এ ভাবেই কোনরকম দিন পার করছেন তিনি। যেদিন খাবার না পান সেদিন না খেয়ে থাকেন এই বৃদ্ধা। এভাবেই মানবেতর জীবনযাপন করছেন কাপ্তানের নেছা।

সরকারি ভাতার আশায় স্থানীয় মেম্বার মনির হোসেন মোল্লার কাছে এক বছর আগে আইডি কার্ড জমা দিয়েছেন কিন্তু কোন লাভ হয়নি। ভাতার আশায় মেম্বারের বাড়িতে প্রায়ই যান তিনি। টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না এই অসহায় মানুষটি।

কাপ্তানের নেছা নতুন কুমিল্লাকে বলেন, তার নিজস্ব কোন ভিটেমাটি নেই, নেই কোন আত্মীয় স্বজনও। সরকার থেকে যদি কোন সহায়তার মাধ্যমে তাকে একটি ঘরের ব্যবস্থা করার পাশাপাশি একটি ভাতা চালু দিতো, তাহলে আমার কষ্টের কিছুটা লাগব হতো।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মনির হোসেন মোল্লা নতুন কুমিল্লাকে বলেন, আমার কাছে বৃদ্ধার আইডি কার্ডটি আছে, চেষ্টা করবো তাকে সরকারি ভাতার ব্যাবস্থা করে দেওয়ার জন্যে।

সমাজ সেবা কর্মকর্তা কবির আহম্মেদ নতুন কুমিল্লাকে বলেন, ইউনিয়ন কমিটি এই বিষয়টি আমার নজরে না আনার ফলে এতো দিন তার ভাতার ব্যবস্থা হয়নি। মহিলার আইডি কার্ড জমা নিয়ে দ্রুত ভাতা দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

উপজেলা নিবার্হী অফিসার মিতু মরিয়ম নতুন কুমিল্লাকে বলেন, কাপ্তানের নেছা’র বিষয়টি আর জানা নেই। যত দ্রুত সম্ভব তার আইডি কার্ডটি সংগ্রহ করে সরকারি ভাবে বয়স্ক ভাতার ব্যবস্থা করা হবে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন