কুমিল্লা
শুক্রবার,২৩ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
৭ কার্তিক, ১৪২৭ | ৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২

বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলার আলোড়ন’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

বর্ণাঢ্য আয়োজনে উৎসব মুখর পরিবেশে পাঠক নন্দিত পত্রিকা দৈনিক বাংলার আলোড়ন পত্রিকার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়। সাফল্যের ১৮ বছর অতিক্রম করে ১৯ তম বর্ষে পর্দাপণ উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) দৈনিক বাংলার আলোড়নের প্রধান কার্যালয়ের মিলণায়তনে ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে চৈত্র্যের প্রখর রোদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সকালেই বাংলার আলোড়ন এর প্রধান কার্যালয় মিলণায়তনে ভরে উঠে ফুলে ফুলে। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে অতিথিদের সংখ্যা।

বৃহত্তর কুমিল্লার লাখো মানুষের হৃদয় জয় করে গৌরবময় ১৮টি বছর নানা চরাই-উৎরাই পেরিয়ে গত ২৬ মার্চ (মঙ্গলবার) ১৯ তম বর্ষে পর্দাপণ করেছে দৈনিক বাংলার আলোড়ন’ পত্রিকাটি। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও কোরআন তেলাওয়াত, অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ, আলোচনা ও কেক কেটে পালিত হয়েছে দৈনিক বাংলার আলোড়ন পত্রিকার ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এর আগে কোরআন তেলাওয়াত করেন -আলহাজ্ব শাহ মোহাম্মদ ইউনুছ গাফ্ফারী বখ্শী।

দৈনিক বাংলার আলোড়নের প্রধান সম্পাদক রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে বাংলার আলোড়নের উপদেষ্টা ওমর ফারুকী তাপসের উপস্থাপনায় প্রধান অতিথি সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কুকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন বাংলা সম্পাদক হাবিবুর রহমানসহ সাংবাদিকবৃন্দ, বিশেষ অতিথি এড. মাহবুবুর রহমানসহ অতিথিদেরকে বরণ করে নেন সাংবাদিকরা। বাংলার আলোড়নের প্রধান সম্পাদক রফিকুল ইসলাম ও সম্পাদক ফারহানা শারমীনকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান রাজিয়া সুলতানাসহ সাংবাদিকবৃন্দ।

বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কুমিল্লা সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কু, বিশেষ অতিথি কুমিল্লা বারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড. মাহাবুবুর রহমান, মহানগর বিএনপি নেতা আবদুর রউফ চৌধুরী ফারুক, বিশিষ্ট চিকিৎসক আবু কায়সার হানিফ, বীরমুক্তিযোদ্ধা সালাউদ্দিন, বাংলার আলোড়ন পত্রিকার সম্পাদক ফারহানা শারমিন, কুমিল্লা অজিতগুহ কলেজের সাবেক ভিপি বাবুল, মহানগর যুবদলের সাবেক সভাপতি আবুল হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সনজিত রায় চৌধুরী,

গর্জনখোলা পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি মোশাররফ হোসেন মোল্লা, ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি খায়রুল আলম, কুমিল্লা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের সাধারণ সম্পাদক খাদেম মো: ফিরোজ, কুমিল্লা প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক এনামুল হক ফারুক, বাংলার আলোড়ন পত্রিকার উপদেষ্টা জুনায়েদ শিকদার তপু, কুমিল্লা রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি সাদেক হোসেন মামুন, আজকের কুমিল্লা পত্রিকার সম্পাদক ইমতিয়াজ আহম্মেদ জিতু, বর্তমান প্রতিদিনের সম্পাদক তাওহিদ হোসেন মিঠু, সমাজ কণ্ঠের সম্পাদক জসিম উদ্দিন চাষী, এশিয়ান টিভির কুমিল্লা ব্যুরো প্রতিনিধি দেলোয়ার হোসেন আকাঈদ প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন-বাংলার আলোড়নের উপদেষ্টা সফিকুর রহমান, আতাউর রহমান, বার্তা সম্পাদক হাবিবুর রহমান খান, আনন্দ টিভির কুমিল্লা প্রতিনিধি আহসান হাবীব পাখি, বাংলার আলোড়ন পত্রিকার সাংবাদিক কামরুজ্জামান, নিজস্ব প্রতিবেদক নেকবর হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মানছুর, সহিদুল ইসলাম সাকিব, সাইফুল ইসলাম ফয়সাল, তুহিন আহম্মেদ, দেলোয়ার হোসেন নোমান, সালাহউদ্দিন বাদল, ইকবাল হোসেন, রাজিয়া সুলতানা পিংকিং, রুমি, সাকুলেশন ম্যানেজার রমজান হোসেন, বিজ্ঞাপন প্রতিনিধি মাহমুদ কচি,

দেবিদ্বার প্রতিনিধি আবদুল হালিম, বরুড়া প্রতিনিধি রিয়াজ উদ্দিন রানা, চান্দিনা প্রতিনিধি আব্দুল বাতেন, চৌদ্দগ্রামের হাসান মুহা. জহির, ব্রাহ্মনপাড়ার রেজাউল হক শাকিল, লাকসামের মানিক প্রমুখ।

এছাড়াও জামাল হোসেন, মো: সাফী, কাউসার আহমেদ, জুবায়ের খান, মহিবুর রহমান ফাহাদসহ রাজনীতিক, সুশীল সমাজ, অন্যান্য ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিক, প্রশাসনিক ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় শুভেচ্ছা সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কু সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন- আমার বিরুদ্ধে না লিখে আমাকে দেখিয়ে আমি সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করবো। লেখে হয়তো কোন লাভ হয় না, মনটা একটু খারাপ হয়।

তিনি বলেন- বাংলার আলোড়ন বিভিন্ন পথ পরিক্রমা পার হয়ে ১৯ বছরে পা দিচ্ছে। আশা করি বাংলার আলোড়নের এ পথচলা অব্যাহত থাকবে। কোনো অপশক্তির সাথে আপোস না করে নিরলসভাবে গণতন্ত্রের স্বার্থে কাজ করে যাক বাংলার আলোড়ন এই প্রত্যাশা করছি। আমি মনে করি বাংলার আলোড়ন সাধারন মানুষের পাশে থেকে সঠিক ভূমিকা রাখবে। এসময় তিনি বাংলার আলোড়নের সম্পাদক, সাংবাদিকসহ সকলকে আন্তরিক সুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

বক্তারা বলেন-বাংলার আলোড়ন কুমিল্লা উত্তর অঞ্চলে একটি মুখপাত্র। বাংলার আলোড়ন মুক্তিযুদ্ধ ও জনগণের পক্ষে কাজ করে যাচ্ছে। সমাজে সংবাদপত্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। বাংলার আলোড়ন দীর্ঘ ১৮ বছর সেই ভূমিকা অব্যাহত রেখেছে। সংবাদপত্র বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে রক্ষা করছে। মাদক, সন্ত্রাসদের বিরুদ্ধে কোন আপোষ করেনি। বাংলার আলোড়ন বৃহত্তর কুমিল্লার আনাচে কানাচে ছড়িয়ে আছে বলে বক্তারা জানান

আরও পড়ুন