কুমিল্লা
সোমবার,২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
১৩ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ১৫ শাবান, ১৪৪৫
শিরোনাম:
অভি’কে সিইও হিসেবে অনুমোদন দিলো আইডিআরএ কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে কটুক্তি, দোকানীকে শিক্ষার্থীদের মারধর

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়কে (কুবি) নিয়ে কটুক্তি করার অভিযোগে এক দোকানীকে মারধর করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক সংলগ্ন একটি দোকানে এক ছাত্রী বিকাশ থেকে টাকা তুলতে গেলে তার সাথে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিসমিল্লাহ্ হার্ডওয়্যার নামের একটি দোকানে মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ থেকে টাকা তুলতে যায় নৃবিজ্ঞান বিভাগের ১১ তম ব্যাচের এক ছাত্রী। ভাংতি টাকা নিয়ে দোকানদার সাদ্দামের সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ঐ ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে কুরুচিপূর্ণ গালি দেয়। এতে ঐ শিক্ষার্থী কান্না করতে থাকলে ঘটনাটি তার সহপাঠিদের নজরে আসে।

ছাত্রীর কাছ থেকে ঘটনা শুনে তার বিভাগের শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে অভিযুক্ত দোকানীকে মারধর করে। শিক্ষার্থীরা এক পর্যায়ে দোকান বন্ধ করে দেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সহায়তায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। দোকানের মালিক ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে প্রক্টর বিষয়টি মিমাংসা করে দেন এবং অভিযুক্ত ঐ দোকানী ভবিষ্যতে এমন কাজ করবে না বলে মুচলেকা দিয়ে সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

ঘটনাস্থলে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীর সাথে কথা বললে তারা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়কে অসম্মান করে কথা বলায় এবং এর আগেও বিভিন্ন সময়ে শিক্ষার্থীদের সাথে খারাপ ব্যবহার করায় আমরা ঐ দোকানীকে মারধর করি। পরে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের কাছে বিচার দাবি করি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত দোকানী সাদ্দামের বড় ভাই ও দোকানটির মালিক মিজান নতুন কুমিল্লাকে বলেন, আমার ছোট ভাই না বুঝে বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে মন্তব্য করেছে। সামনে থেকে আর এমন হবে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন নতুন কুমিল্লাকে বলেন, আমরা শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এনেছি। অভিযুক্ত দোকানী থেকে মুচলেকা নেয়া হয়েছে। সামনে থেকে কেও বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে মানহানিকর কিছু বললে তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন