কুমিল্লা
সোমবার,২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
১৩ আশ্বিন, ১৪২৭ | ১০ সফর, ১৪৪২

কুমিল্লার আমিনুলের মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনের দাবীতে মানববন্ধন

রাজধানীর ফার্মগেটে একটি আবাসিক হোটেলে কুমিল্লার আমিনুল ইসলাম সজলের (২২) রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় মানববন্ধন করেছে তার সহপাঠী ও এলাকার সর্বস্তরের জনগন।

এদিকে ওই আবাসিক হোটেল থেকে সজলসহ আরেক শিক্ষার্থী মরিয়ম চৌধুরীর (২০) মরদেহ উদ্ধারের ঘটনার ২৬ দিনেও হত্যার রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ।

নিহত দুই শিক্ষার্থীর একজন কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার হরিপুর গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে আমিনুল ইসলাম সজল ও ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির ছাত্রী মরিয়ম চৌধুরীর বাড়ি মুন্সিগঞ্জ জেলায়। সজলের বাবার দাবি, সজলকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হোটেল কর্তৃপক্ষকে আইনের আওতায় নিলে সজলের মৃত্যুর রহস্য বের হবে।

রবিবার (২৮ এপ্রিল) সকালে জেলার নাঙ্গলকোট সদরে হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ফাসিঁর দাবীতে মানববন্ধন করেছে সর্বস্তরের জনগণ।

এ সময় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, নিহত সজলের বাবা মোশারফ হোসেন, সাবেক অধ্যক্ষ সাদেক হোসেন ভূঁইয়া, অধ্যাপক নুরুল্লাহ মজুমদার, হেশাখাল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জালাল আহমেদ, নাঙ্গলকোট পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ হোসেন, নাঙ্গলকোট সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ওবায়দুল হক, নাঙ্গলকোট প্রেসক্লাবের সভাপতি মজিবুর রহমান মোল্লা প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, নিহত সজলের অস্বাভাবিক মৃত্যুকে নিয়ে কুৎসা রটিয়ে হত্যাকরীদের বাচাঁনোর চেষ্টা করা হচ্ছে। লাশ উদ্ধারের সময় পুলিশ ও হোটেল কর্তৃপক্ষ গণমাধ্যমকে জানায়, যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট সেবন করে দুজন মারা গেছে। সজলের পকেটে ডুমেক্স-৬০ নামে দুটি যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট পাওয়া গেছে। তা দেখেই এই সিদ্ধান্তে পৌঁছায় পুলিশ। পুলিশের করা সুরতহাল প্রতিবেদন অনুযায়ী, দুজনের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। আত্মহত্যাও করেননি তারা।

উল্লেখ্য, গত ২ এপ্রিল রাজধানীর ফার্মগেটের আবাসিক হোটেল সম্রাটের ৮০৮ নম্বর কক্ষ থেকে উদ্ধার করা হয় কুমিল্লা নাঙ্গলকোটের তেজগাঁও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র আমিনুল ইসলাম সজল (২২) ও মুন্সিগঞ্জ বাড়ি ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির ছাত্রী মরিয়ম চৌধুরীর (২০) মরদেহ।

আলোচিত এ হত্যাকান্ড নিয়ে গত ২৩ এপ্রিল এনটিভির অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে প্রচার করা হয়। এরপর দেশজুড়ে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয় এ শিক্ষার্থীদের রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে।

আরও পড়ুন