কুমিল্লা
বৃহস্পতিবার,৬ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
২৩ বৈশাখ, ১৪২৮ | ২৩ রমজান, ১৪৪২

কারিগরী শিক্ষা বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি দিতে পারে: ছাত্রনেতা সোহাগ মাহমুদ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের বাঙ্গড্ডা ইউনিয়নের দাঁড়াচৌ জনকল্যাণ সংঘ ও পাঠাগার কর্তৃক আয়োজিত এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধণা ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়েছে।

শনিবার (২২ জুন) আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নাঙ্গলকোট উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুর রাজ্জাক সুমন।

অনুষ্ঠানে দাড়াঁচৌ জনকল্যাণ সংঘ ও পাঠাগারের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাবেক ছাত্রনেতা সোহেল রানা সাগরের সভাপতিত্বে প্রধান বক্তা ছিলেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ছাত্রনেতা মোঃ সোহাগ মাহমুদ। বাঙ্গড্ডা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক শাকিল ও দাঁড়াচৌ ছাত্রলীগের সভাপতি ফরহাদের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বাঙ্গড্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান মজুমদার,

বাঙ্গড্ডা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ শহীদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন শাকিল, চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মুন্সীরহাট ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ মাসুদ রানা, শুভপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফুল ইসলাম সাগর, সাধারণ সম্পাদক নাহিদ আদনান, ওমানের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও সাবেক ছাত্রনেতা আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কৃতি শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয় ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা বলেন, গত দশকে বাংলাদেশে শিক্ষিতের সংখ্যা বেড়েছে বহুগুণ, তবে এর ৭০% বেকার। কারণ জেনারেল লাইনে পড়াশোনা করার কারণে সবাই চাকরির পিছনে দোঁড়ায়, তাই চাকরির তুলনায় প্রতিযোগী বেশী। তাই তারা বেশীর ভাগেই চাকরি থেকে বঞ্চিত। এতে করে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এই বেকারেরা সমাজের চোখে বোঝায় পরিণত হয়। তাই এই বোঝার অভিশাপ থেকে বাঁচতে হলে কারিগরি শিক্ষা বা প্রশিক্ষণের কোন বিকল্প নেই। একমাত্র কারিগরি শিক্ষায় পারে বেকারত্বের মত অভিশাপ থেকে সমাজের যুবদের বাঁচাতে। তাই শিক্ষার্থীদের কারিগরি প্রশিক্ষণ ও কারিগরি লাইনে পড়াশোনার উপর জোর দিতে হবে।

তাহলে ২০৪১ সালের মধ্যে বেকারত্ব শুণ্যের কোঠায় নামানো সম্ভব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা ২০৩০ সালের মধ্যে ৩ কোটি কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। তার বেশী ভাগেই শিল্প কল কারখানায় নিয়োগ দেয়া হবে। নতুন নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠনের মধ্যে সরকার সেই ব্যবস্থা নিচ্ছে। বাংলাদেশে কর্মী প্রচুর থাকলে ও দক্ষ কর্মীর বড়ই অভাব।

তাই কর্মমুখী শিক্ষা অর্জন করতে হবে। তাহলে পড়াশোনা শেষ করে চাকরি খুঁজতে হবে না আর। নিজেই উদ্দ্যোক্তো হতে হবে। দেশ ও সমাজের প্রতি আমাদের যে ঋণ আছে তা শোধ করতে হবে।

আরও পড়ুন