কুমিল্লা
রবিবার,১৬ মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ | ৩ শাওয়াল, ১৪৪২

চেক জালিয়তি মামলা:

হোমনায় সাবেক এমপি প্রার্থী আ.লতিফ স্বপন কারাগারে

চেক জালিয়তি মামলায় কুমিল্লার হোমানায় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী সাজাপ্রাপ্ত আবদুল লতিফ স্বপন সওদাগর ও আবদুস সাত্তার নামে দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে সোমবার রাতে পৃথক দুটি অভিযানে পরোয়ানাভুক্ত আবদুল লতিফ স্বপন ও আবদুস সাত্তারকে নিজ নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে হোমনা থানা পুলিশ।

হোমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মো. ফজলে রাব্বী এ তথ্য নিশ্চিত করে নতুন কুমিল্লা.কম-কে বলেন, এনআই এক্টের ১৩৮ ধারায় পৃথক দুইটি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী আবদুল লতিপ স্বপন এবং আরেক ব্যবসায়ী আবদুস সাত্তারের বিরুদ্ধে সোমবার গ্রেফতারী পরোয়ানা থানায় এলে দু’জনকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার দুপুরে জেলে পাঠানো হয়েছে।

সারুলিয়া ঢাকার ব্যবসায়ী মো. শফিউল্লাহ স্বপন ২০১৫ সালে হোমনা উপজেলার ইটাভরা গ্রামের মৃত নূরু মিয়া সওদাগরের ছেলে ব্যবসায়ী আবদুল লতিফ সওদাগর স্বপনের বিরুদ্ধে চেক জালিয়তির একটি মামলা দায়ের করেন। সিআর মামলা নং১৮৭/১৫ এবং দায়রা মামলা নং ১০৭০০/১৫। এর প্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ পঞ্চম আদালত গত ৯ জানুয়ারি ২০১৯খ্রি. আবদুল লতিফের বিরুদ্ধে তিন মাসের জেল এবং ২৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা পরিশোধের রায় প্রদান করেন।

অপরদিকে হোমনা উপজেলার দড়িচর গ্রামের মো. খলিলুর রহমানের ছেলে আবদুস সাত্তারের বিরুদ্ধে গত ২০১৮ সালে একই ধারায় আরেকটি মামলা দায়ের করেন ফ্রেশ সিমেন্টের ডিলার আনিসুর রহমান। গত ২৬ মে কুমিল্লার যুগ্ম দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালত আবদুস সাত্তারের বিরুদ্ধে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং ৭ লাখ ৭৫ হাজার টাকা পরিশোধের রায় প্রদান করেন। আসামীরা পলাতক থাকায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপতারি পরোয়ানা জারী হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ গত সোমবার রাতে তাদের গ্রেপতার করে জেলে পাঠিয়েছে।

উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় জাকের পার্টির দাতা সদস্য আবদুল লতিফ স্বপন গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-০২ হোমনা-তিতাস আসন থেকে গোলাপ ফুল প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন পরাজিত হন।

আরও পড়ুন