কুমিল্লা
বুধবার,১৬ জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
২ আষাঢ়, ১৪২৮ | ৫ জিলকদ, ১৪৪২

কুমিল্লায় মা-ছেলেসহ ৩ জনকে কুপিয়ে হত্যা; গণপিটুনিতে ঘাতক নিহত

কুমিল্লার দেবিদ্বারে প্রকাশ্যে নারী-শিশুসহ ৩ জনকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উত্তেজিত হয়ে স্থানীয়দের গণপিটুনিতে অভিযুক্ত ঘাতকও নিহত হয়েছেন। বুধবার (১০ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার ধামতি ইউনিয়নের রাধানগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- রাধানগর গ্রামের নুরুল ইসলামের স্ত্রী নাজমা বেগম (৪০), শাহ আলমের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম আনু (৪৫) এবং তার স্কুল পড়ুয়া শিশু ছাত্র আবু হানিফ (১০)। স্থানীয়দের গণপিটুনিতে নিহত ঘাতকের নাম মোখলেসুর রহমান (৩৫)।

এদিকে এ ঘটনার সময় ঘাতকের দা’য়ের কোপে নুরুল ইসলামসহ অন্তত ৫ জন গুরুতর আহত হয়েছে। তাদেরকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহিরুল আনোয়ার নতুন কুমিল্লা.কম-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়দের বরাদ দিয়ে তিনি জানান, বুধবার সকালে মোখলেসুর বাড়িতে এসে ঘর থেকে দা নিয়ে প্রথমে প্রতিবেশি নুরুল ইসলামের ঘরে ঢুকে তার স্ত্রী নাজমা বেগমকে আচমকা কুপিয়ে হত্যা করে। এ সময় নুরুল ইসলাম স্ত্রীকে বাঁচাতে এলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে মোখলেস। ছেলের চিৎকারের নুরুল ইসলামের মা মাজেদা বেগম এগিয়ে এলে তাকেও এলোপাতারি কুপিয়ে ঘাতক আহত করে।।

এরপর মোখলেস রক্তমাখা দা নিয়ে যায় আরেক প্রতিবেশী শাহ আলমের বাড়িতে যায়। সেখানে শাহ আলমের স্কুল পড়ুয়া ছেলে আবু হানিফকে (১০) কুপিয়ে হত্যা করে। ছেলেকে বাঁচাতে এলে শাহ আলমের স্ত্রী আনু বেগমকেও কুপিয়ে হত্যা করে মোখলেস। খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে মোখলেসকে আটক করে গণপিটুনি দেয়। এতে তার মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে প্রতিবেশিরা নুরুল ইসলামসহ অপর আহতদের উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

কি কারণে এই নৃশংস হত্যার ঘটনা ঘটেছে ঘাতক গণপিটুনিতে নিহত হওয়ায় তা এখনো জানা যায়নি ওসি জহিরুল আনোয়ার জানান।

আরও পড়ুন