কুমিল্লা
সোমবার,২৮ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ৩ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪
শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি

শিশু তুবার পাশে সৌদি প্রবাসী কুমিল্লার মিজানুর রহমান সুমন

মাকে হারিয়ে শোকে কাতর নিষ্পাপ শিশু তুবার পাশে দাঁড়িয়েছেন সৌদি আরব প্রবাসী কুমিল্লার মনোহরগঞ্জের মিজানুর রহমান সুমন। তিনি তুবার জন্য বেশকিছু পোশাক, জুতা, স্কুল ব্যাগ, খেলনা, পুতুল সহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে যান। এ সময় তিনি তুবাকে নগদ অনুদান প্রদান করেন। তিনি তুবাকে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

জানা যায়, ছোট্ট তুবাকে ঢাকার বাড্ডার একটি স্কুলে ভর্তির জন্য খোঁ জ নিতে গিয়েই ছেলেধরা স ন্দেহে গণ পি টুনিতে হ ত্যা কা ন্ডের শিকার হন তাসলিমা বেগম রেনু (৪০)। এখনও তুবা জানে না তার মা কোথায় আছে-কেমন আছে? কেউ জিজ্ঞাসা করলেই বলছে- মা চকলেট আনতে গেছে। মায়ের দীর্ঘ অনুপস্থিতিতে থেমে থেমে চলছে তুবার কান্না। কান্নাই যেন এখন তার একমাত্র সম্বল। তার কান্নায় শোক ছড়িয়ে শোকের মাতম চলছে রেনুর স্বজনদের মধ্যে।

তুবার কান্না সহ্য করতে পারেননি সৌদি প্রবাসী মনোহরগঞ্জের কৃতি সন্তান মিজানুর রহমান সুমন। আলোচিত দানবীর ও সৌদি মক্কা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুমন ২৮ জুলাই সৌদি আরবের মক্কা থেকে ছুটে এসে তুবার পাশে দাঁড়ান।

তিনি তুবার জন্য অনেকগুলো জামা কাপড়, জুতা, স্কুল ব্যাগ, খেলনা, পুতুলসহ বিভিন্ন সামগ্রী নিয়ে আসেন। তাঁর পরম আদরে মুহুর্তের জন্য মায়ের কথা ভুলিয়ে রাখে তুবাকে। এ সময় তিনি তুবাকে আর্থিক অনুদান প্রদান করেন।

প্রবাসী মিজানুর রহমান সুমন বলেন- ছোট্ট শিশু তুবার কান্না সহ্য করতে না পেরে সৌদি আরব থেকে এসে তার পাশে দাঁড়াতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। তুবার যে কোন প্রয়োজনে সবসময় পাশে থাকতে চাই।

দানবীর মিজানুর রহমান সুমন ইতোপূর্বেও লাকসামে অসহায় এক স্কুল ছাত্রীর কিডনির চিকিৎসার জন্য ২১ লক্ষাধিক টাকা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিজস্ব অর্থায়নে একাডেমিক ভবন নির্মাণ, মসজিদ-মাদ্রাসায় অনুদান প্রদান, দরিদ্র ও অসহায় মানুষকে চিকিৎসা সহায়তা, দরিদ্র মেয়ের বিয়েতে সহযোগিতা সহ সেবামুলক কর্মকান্ডের প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে চলেছেন।

আরও পড়ুন