কুমিল্লা
সোমবার,১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ
১ আশ্বিন, ১৪২৬ | ১৬ মুহাররম, ১৪৪১
Bengali Bengali English English

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশীদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে নারকীয় তান্ডব

সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা জোহানসবার্গ শহরে স্মল অ্যাস্টেট, ব্রি অ্যাস্টেট, জিপি অ্যাস্টেট, এমটিএন ট্যাক্সি রেংক র্ব্রি ট্যাক্সি রেংঙ্ক, হিলব্রো, নিউটাউনসহ ফৌজবাগ মেফেয়ারের আশপাশের সকল শহরগুলো যেমন জুইলিস মালভেন, তারপনটিন,

রেন্ডপনটিন, প্রিমরোজ, পুস্তুরাজ, থেমবিছা, আলেকজান্ডার ,জার্মিস্টন, রজেটন বিল, নিউক্যাসেল বাংলাদেশী অভিবাসীদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দিনভর হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের শিকার হয়েছে অন্তত সহস্রাধিক অভিবাসী।

ভুক্তভোগীরা প্রাবাসী বাংলাদেশীরা পুলিশের ধারস্ত হলেও উল্লেখযোগ্য কোন সহযোগিতা করছেনা সে দেশের পুলিশ। যার ফলে ভয়াবহ হামলার শিকার হয়েছেন হাজারো বাংলাদেশী।

এ দিকে মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) জোহানসবার্গ শহরের আশপাশের সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।
গত রবিবার রাতে মালভেনের জুলিস অ্যাস্টেটে স্থানীয় কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিকরা নারকীয় তাণ্ডব চালিয়ে প্রায় শতাধিক বাংলাদেশি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান লুটপাট, অগ্নিসংযোগ সহ সোরুমে থাকা প্রায় শতাধিক গাড়ী পুড়িয়ে দিয়েছে ।

ইতিমধ্যে প্রিটোরিয়া শহর ও তার আশপাশের এলাকায় হামলা ও লুটপাট চলছে। আশংকা করা হচ্ছে এ হামলা ও লুটপাট, অগ্নিসংযোগ সারাদেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে এমন টি আসা করছেন স্থানীয়রা।

অপর দিকে আন্তর্জাতিক তেল এবং গ্যাস সরবরাহ কোম্পানি টোটাল এক নোটিশের মাধ্যমে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনির্দিষ্টকালের জন্য তাদের সেবা বন্ধ করে দিয়েছে,

ভয়ংকর তান্ডবে আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস (এএনসি ও ইকোনমিক ফ্রিডম ফাইটার (ইএফএফ) চলমান ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে,দক্ষিণ আফ্রিকার বিভিন্ন জায়গায় অভিবাসীদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর লুটপাট অগ্নিসংযোগের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে এবং অপরাধমূলক কাজের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকায় বিভিন্ন শহরে থম থম অবস্থা বিরাজ করছে। এই নগ্ন হামলা বন্ধে সেখানে বসবাসরত বাংলাদেশীরা আর্ন্তজাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলোর সহযোগীতা কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন