কুমিল্লা
সোমবার,৮ আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
২৪ শ্রাবণ, ১৪২৯ | ৯ মহর্‌রম, ১৪৪৪
শিরোনাম:
ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি বিএনপি থেকে সাক্কুর পদত্যাগ

কুমিল্লায় চাঁদা না দেওয়ায় প্রবাসীকে গুলি

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে চাঁদা না দেওয়ায় প্রবাসীকে গুলি এবং ধারালো অস্ত্র ও হাতুড়ি দিয়ে কুপিয়ে, পিটিয়ে আহতের অভিযোগ উঠেছে সাকিব ও সুমন নামে দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে।

হামলায় আহত প্রবাসী আবদুল কাইয়ুম রনি জীবন রক্ষায় পুলিশের জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল করলে পুলিশ তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে। এরপর চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সকালে কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গুণবতী ইউনিয়নের চাপাচৌ গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। হামলাকারী নাজমুস সাবিক ওরফে ইয়াবা সাকিব (২২) এবং তার ভাই শাহাদাত হোসেন সুমন (৩০)। তারা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গুণবতী ইউনিয়নের চাপাচৌ গ্রামে মৃত আবদুর সোবানের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, ইয়াবা সাকিব ও সুমনের পেশা এলাকায় ঘুরে ফিরে বিভিন্ন অজুহাতে প্রবাসী পরিবারসহ সাধারণ মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে চাঁদা আদায় করা। এর আগেও সাকিব ও সুমন চাঁদা না দেওয়ায় ওই গ্রামের কয়েকজনকে হামলা ও মারধরের হুমকি দেয়।

হামলার শিকার প্রবাসী আবদুল কাইয়ুম রনি চাপাচৌ গ্রামের মৃত হাজী আবদুর রাজ্জাকের ছেলে। তিনি জানান, সাকিব ও সুমন মঙ্গলবার সকালে দলবল নিয়ে তার কাছে চাঁদার জন্য আসে। আগেও একাধিকবার তাদেরকে চাঁদা দিয়েছিলেন। আজ চাঁদা দেবেন না জানালে তারা তাকে মারধরের হুমকি দেয়। তিনি প্রতিবাদ করতে গেলে ধারালো অস্ত্র ও হাতুড়ি দিয়ে তার ওপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও হাতুড়ি দিয়ে আঘাতের পর তার হাতে এবং কোমরে গুলি করে অভিযুক্ত ‍দুই ভাই।

তখন ওই প্রবাসী পুলিশের জরুরি নাম্বার ৯৯৯-এ কল দিয়ে সাহায্য চাইলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে। পরে চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

চৌদ্দগ্রাম কনকাপত পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. আবদুল জলিল জানান, ৯৯৯ নাম্বারে কল পেয়ে আমরা হামলাকারীদের হাত থেকে ওই প্রবাসীকে উদ্ধার করি। এরপর চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠাই। এখন পর্যন্ত থানায় কোনও অভিযোগ হয়নি। অভিযোগের পর অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশ কাজ করবে। সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

আরও পড়ুন