কুমিল্লা
সোমবার,৩ অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১৮ আশ্বিন, ১৪২৯ | ৬ রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪
শিরোনাম:
কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন কুসিকে মেয়র প্রার্থী রিফাতের নির্বাচন পরিচালনায় ৪১ সদস্যের কমিটি

আমোদ উপদেষ্টা সম্পাদক শামসুননাহার রাব্বীর ইন্তেকাল

কুমিল্লা থেকে প্রকাশিত দেশের প্রাচীন সংবাদপত্র সাপ্তাহিক ‌‘আমোদ’ উপদেষ্টা সম্পাদক শামসুননাহার রাব্বী ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাইহি রাজিউন।

শুক্রবার (২৫ জুন) বাংলাদেশ সময় রাত ১০ টায় তিনি যুক্তরাষ্ট্রের একটি হাসপাতালে চিতিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। মৃতুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর। তিনি মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ জাতীয় রোগে ভুগছিলেন।

আমোদ সম্পাদক বাকীন রাব্বী নতুন কুমিল্লাকে জানান, ২৩ জুন বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৩টার দিকে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউজর্জি রাজ্যের নেপচুন শহরের জার্জি শোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। শামসুননাহার রাব্বী পাঁচ দশকের বেশি সময় ধরে কুমিল্লায় সাংবাদিকতার পাশাপাশি লেখালেখি করে আসছেন। তিনি কুমিল্লায় বিভিন্ন সামাজিক কাজের সাথেও জড়িত ছিলেন। তার একাধিক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে।

তিনি মৃত্যু কালে এক ছেলে, তিন মেয়ে, দুই নাতনি ও সাত নাতিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। বাকীন রাব্বী তার মায়ের আত্মার মাগফেরাতের জন্য কুমিল্লাসহ দেশবাসীর নিকট দোয়া চেয়েছেন।

শামসুননাহার রাব্বীর মৃত্যুতে কুমিল্লার সাংবাদিক, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ শোক প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ্য – ১৯৫৫ সালে শামসুননাহার রাব্বীর স্বামী মোহাম্মদ ফজলে রাব্বী কুমিল্লার পুরাতন চৌধুরী পাড়া থেকে সাপ্তাহিক আমোদ পত্রিকার প্রকাশনা শুরু করেন। ১৯৯৪ সালের ২৮ নভেম্বর তাঁর মৃত্যুর পর আমোদ প্রকাশনার দায়িত্ব নেন তাঁর সহধর্মিনী শামসুন নাহার রাব্বী ও ছেলে বাকীন রাব্বী।

আরও পড়ুন