কুমিল্লা
সোমবার,২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
১৩ ফাল্গুন, ১৪৩০ | ১৫ শাবান, ১৪৪৫
শিরোনাম:
অভি’কে সিইও হিসেবে অনুমোদন দিলো আইডিআরএ কুমিল্লায় ৭১১ রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন ইসলামী ব্যাংকের ফাস্ট এ্যসিসস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নাজমুলের পদোন্নতি লাভ ‘গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন তাহসিন বাহার কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক নূর উর নবী চৌধুরীর ইন্তেকাল কাউন্সিলর প্রার্থী কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ লাকসামে বঙ্গবন্ধু ফুটবল গোল্ডকাপে পৌরসভা দল বিজয়ী কুসিক নির্বাচন: এক মেয়রপ্রার্থীসহ ১৩ জনের মনোনয়ন প্রত্যাহার কুসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন বিদ্রোহী প্রার্থী ইমরান স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে কুমিল্লায় ঢাকা আহছানিয়া মিশনের মেলার আয়োজন

নিষেধাজ্ঞা অমান্যকরে মহাসড়কে যাত্রী নিয়ে চলছে পরিবহন

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সোমবার থেকে দেশজুড়ে সীমিত পরিসরে ‘লকডাউন’ শুরু হয়েছে। তিন দিনের এ লকডাউনে রিকশা ছাড়া সব ধরনের গণপরিবহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা ধাকলেও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার অংশে দেখা গেছে এর উল্টো চিত্র। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত যাত্রী বহন করে চলে মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, পিকআপ ভ্যান ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা। যাত্রীদের অভিযোগ ছিল পরিবহন চালাক ও হেলপাররা লকডাউনের দোহায় দিয়ে আদায় করেছেন তিন থেকে চার গুণ অতিরিক্ত ভাড়া। স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা নেই এসব পরিবহনে।

সোমবার (২৮ জুন) দুপুরে মহাসড়কের কুমিল্লার পুদুয়ার বাজার বিশ্বরোড এলায় গিয়ে দেখা গেছে এমন চিত্র।

সরেজমিনে দেখা গেছে, পুদুয়ার বাজার বিশ্বরোড থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর ও চাঁদপুর জেলা মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, পিকআপ ভ্যান ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সড়কে কেন নামানো হয়েছে পরিবহন এমন প্রশ্ন করা হলে তারা বলেন, হাইওয়ে পুলিশকে নির্দিষ্ট পরিমান চাঁদা দিয়েই তারা সড়কে গাড়ি চালাচ্ছেন। তবে এসব পরিবহনে শারীরিক দূরত্ব, মুখে মাস্কপড়াসহ কোন প্রকার স্বাস্থ্য মানতে দেখা যায়নি।

পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড এলাকা চলছে মাইক্রোবাস ও সিএনজি চালিত অটোরিকশার আন্তঃজেলা সার্ভিস। চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে গাদাগাদি করে যাত্রী নিয়ে ছেড়ে যাচ্ছে মাইক্রোবাসগুলো। আদায় করা হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। বিশ্বরোড থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত প্রতি যাত্রীকে গুনতে হচ্ছে ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা। এ নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন একাধিক যাত্রী। আর সিএনজি চালিত অটোরিকশা যাচ্ছেন ফেনীর মহিপাল পর্যন্ত। তারা জনপ্রতি ২০০টাকা করে যাত্রী বহন করতে দেখা গেছে। আর চৌদ্দগ্রাম পর্যন্ত নিচ্ছেন ১০০টাকা করে।

কথা হয় চট্টগ্রামগামী খাইরুল এনাম নামে ওষধ কোম্পানীর এক বিক্রয় প্রতিনিধির সাথে। নতুন কুমিল্লাকে তিনি জানান, ‘সড়কে গণপরিবহন না থাকায় দেড় ঘণ্টা অপেক্ষা করে বাধ্য হয়ে গাদাগাধি করে মাইক্রোবাসে ওঠেছেন । ২০০টাকার এখন দিতে হবে ৭০০টাকা। এ নিয়ে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।’

দিদার হোসেন নামে এক আইনজীবী বলেন,সিএনজি চালিত অটোরিকশা যোগে চৌদ্দগ্রাম থেকে পদুয়ার বাজার এলাকা পর্যন্ত আসতে তাকে গুনতে হয়েছে ১০০টাকা।

বিকাশ চন্দ্র সরকার নামে এক ব্যক্তিকে দেখা গেছে পরিবার নিয়ে পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডে দাঁড়িয়ে থাকতে। তিনি যাবেন চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড এলাকায়। উচ্চ ভাড়ার কারণে শেষ পর্যন্ত তাকে স্বপরিবারে ফিরে যেতে হয়েছে নিজ বাসা কুমিল্লা নগরীর ঠাকুর পাড়ায়।

অপর দিকে এমদাদ, কামাল হোসেন ও সরওয়ার আলাম জানান, তারা যাত্রাবাড়ি থেকে পিকআপ ভ্যানে করে পদুয়ার বাজারে এসেছেন ৫০০টাকা করে। তিন জনের গন্তব্য চাঁদ জেলায়। এবার তারা সেখান থেকে ২ হাজার টাকায় ভাড়া করেছেন একটি প্রাইভেকার।

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সড়কে কেন নামানো হয়েছে এমন প্রশ্ন করা হলে কামাল হোসেন নামে মাইক্রোবাসের এক চালক জানান, মহাসড়কে পুলিশকে চাঁদা দিয়ে তার গাড়ি চালান। যার কারণে সড়কে এদের সমস্যা হয় না।

এ বিষয়ে মিয়া বাজার হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামন নতুন কুমিল্লাকে বলেন, মহাসড়কের সুগাজী থেকে ফেনী সীমান্তের দত্তসার পর্যন্ত সকাল থেকে আমাদের টহল টিম রয়েছে। পন্যবাহী পরিবহন ছাড়া যাত্রীবাহী কোন পরিবহন আমাদের চোখে পড়েনি। চালকদের কাছ থেকে চাঁদা নেয়ার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেছেন।

ময়নামতি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনিছুর রহমান জানান, চাঁদা নেয়ার বিষয়টি সত্য নয়। আগামী কাল থেকে পদুয়ার বাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হবে।

আরও পড়ুন