কুমিল্লা
মঙ্গলবার,১৭ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ | ১৫ শাওয়াল, ১৪৪৩

কুমিল্লা সিটি নির্বাচন: নৌকার মাঝি কে এই রিফাত

আরফানুল হক রিফাত

নানা জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আব শেষে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন আরফানুল হক রিফাত।

শুক্রবার (১৩ মে) সন্ধ্যায় গণভবনে আওয়ামী লীগের ‘স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ড’র সভায় তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন দলের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আরফানুল হক রিফাত বর্তমানে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকে দায়িত্ব পালন করছেন। এ ছাড়াও তিনি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহসভাপতি ও জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি।

১৯৭৬ সাল থেকে ভিক্টোরিয়া কলেজে ছাত্রলীগ করার মধ্যদিয়ে কুমিল্লার রাজনীতিতে প্রবেশ করেন আরফানুল হক রিফাত। এক বছর পর ১৯৭৭ সালে কুমিল্লা শহর ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পান। ১৯৮০ সালে ভিক্টোরিয়া কলেজে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে বহিঃ ক্রীড়া সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালে কুমিল্লা যুবলীগের সিনিয়র সহসভাপতি নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন।

রাজনীতি করতে গিয়ে বহু মামলা-হামলার শিকার হয়েছেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর কুমিল্লা টাউনহল মাঠে বিতর্কিত রাষ্ট্রপতি খন্দকার মোশতাক আহমেদের জনসভা পণ্ড করার অপরাধে সামরিক আইনে তিন বছরের সাজা হয়েছিল। ভিক্টোরিয়া কলেজ ছাত্ররাজনীতি করতে গিয়ে জামায়াত-শিবিরের হামলায় গুরুতর আহত হয়ে সিঙ্গাপুরে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের অনুসারী।

২০১৭ সালে সিটি কর্পোরেশনের দ্বিতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। গত ১৩ এপ্রিল কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠিত মহানগর আওয়ামীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় দলের একক প্রার্থী হিসেবে আরফানুল হক রিফাতের নাম কেন্দ্রে পাঠাননো হয়।

তিনি কুমিল্লা মহানগরীর ১১ নং ওয়ার্ডের মনোহরপুর এলাকার বাসিন্দা। তার পিতা মৃত এস এম আতাউল হক।

আরফানুল হক রিফাত নতুন কুমিল্লাকে বলেন, দলীয় কর্মকান্ড বিবেচনা করে কুমিল্লার মানুষের সেবা করার জন্য নেত্রী আমাকে সুযোগ দিয়েছেন। এ জন্য সারা জীবন নেত্রীর কাছে আমি কৃতজ্ঞ থাকবো। কৃতজ্ঞ থাকবো কুমিল্লার মানুষের কাছেও। আগমী ১৫ জুন তারা আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করলে আমি সততা, নিষ্ঠা ও জবাব দিহিতার মাধ্যমে তাদের সেবা করে যাবো ইনশাআল্লাহ।

তফসিল অনুযায়ী, এ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ১৭ মে। মনোনয়নপত্র বাছাই ১৯ মে। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৬ মে। প্রতীক বরাদ্দ ২৭ মে। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৫ জুন।

২৭টি ওয়ার্ডের ১০৩টি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ সিটিতে মোট ভোটার দুই লাখ ৩২ হাজার ৬৩০ জন। এদের মধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ১৪ হাজার ৪৮৮ জন। পুরুষ ভোটার এক লাখ ১৮ হাজার ১৪২ জন।

এদিকে, কুমিল্লা সিটি নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে ১৪ জন নেতা-কর্মী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন আবেদন ফরম সংগ্রহ করেন।

তারা হলেন- সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আঞ্জুম সুলতানা সীমা, সহ-সভাপতি ওমর ফারুক, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সফিকুল ইসলাম শিকদার, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাত, তথ্য ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক নুর উর রহমান মাহমুদ তানিম, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক কবিরুল ইসলাম শিকদার, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আনিসুর রহমান মিঠু,

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য মাসুদ পারভেজ খান ইমরান, মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য জাকির হোসেন, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি শ্যামল চন্দ্র ভট্টাচার্য, ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য মাহবুবুর রহমান, চট্টগ্রামের রাউজান উচ্চবিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সাবেক জিএস (সাধারণ সম্পাদক) কাজী ফারুক আহমেদ, আওয়ামী লীগের উপকমিটির সহসম্পাদক মো. শাহজাহান ও আওয়ামী লীগ সদস্য শফিউর রহমান।

আরও পড়ুন