কুমিল্লা
মঙ্গলবার,১৭ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ | ১৫ শাওয়াল, ১৪৪৩

চৌদ্দগ্রামে টর্নেডোর তাণ্ডবে লন্ডভন্ড বাড়িঘর

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে টর্নেডোর আঘাতে স্বাস্থ্যকেন্দ্র, মসজিদ, মাদরাসা ও অসংখ্য ঘরবাড়ি লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। এ সময় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ওপর উপড়ে পড়ে অসংখ্য গাছ। এতে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা গাছ সরিয়ে নিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

শুক্রবার (১৩ মে) বিকেলে উপজেলার ঘোলপাশা ইউনিয়নের আমানগন্ডা ও সালুকিয়া গ্রামে এ তাণ্ডব চলে।

স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার বিকেল তিনটা থেকে থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছিল। হঠাৎ দমকা হাওয়া শুরু হলে মুহূর্তের মধ্যে অসংখ্য ঘরের চাল, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, মসজিদ ও মাদরাসা লন্ডভন্ড হয়ে যায়। এছাড়া ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে থাকা গাছ পড়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

ঘোলপাশা ইউপি চেয়ারম্যান একে খোকন নতুন কুমিল্লাকে জানান, শালুকিয়া গ্রামে অবস্থিত ইউনিয়ন পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের উপরের ঢেউটিন উড়ে যায়, স্থানীয় একটি মসজিদ ও মাদরাসা সম্পূর্ণ ভেঙে যায়। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে আমি এলাকা পরিদর্শন করি। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সর সাব-অফিসার নাজির আহমেদ বলেন, বিকেল সোয়া ৩টার দিকে হঠাৎ টর্নেডোর আঘাতে গাছপালা ভেঙে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ওপর পড়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পড়ে থাকা গাছ সরিয়ে নিলে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানভীর হোসেন নতুন কুমিল্লাকে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের জন্য ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করে প্রাথমিকভাবে ৫ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হবে। ইতোমধ্যে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে তালিকা তৈরির জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন